সংবাদ শিরোনাম:
বাসাইলে পানিতে ডুবে স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু কালিহাতীতে বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ধনবাড়ীতে সিএনজি’র দখলে সড়ক, জনদুর্ভোগ চরমে টাঙ্গাইলে ২৮ লাখ টাকার ক্রিস্টাল ম্যাথ ও ইয়াবাসহ দুই মাদক কারবারিকে গ্রেফতার করেছে ডিবি পুলিশ সখীপুরে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধ ধর্মীয় নেতাদের করণীয় শীর্ষক আলোচনা ত্রাণ নিয়ে সিলেট যাচ্ছেন ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা টাঙ্গাইলে হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসকদের মানববন্ধন ভুয়া চিকিৎসক আটক, তিন মাসের কারাদন্ড টাঙ্গাইলে বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি, পানিবন্দি লাখো মানুষ মাভাবিপ্রবিতে ‘ক্রাইম, ভিক্টিম্স এবং জাস্টিস’ শীর্ষক কর্মশালা অনুষ্ঠিত
একাধিকবার ধর্ষণে আট মাসের অন্ত:সত্ত্বা স্কুলছাত্রী: অতঃপর

একাধিকবার ধর্ষণে আট মাসের অন্ত:সত্ত্বা স্কুলছাত্রী: অতঃপর

প্রতিদিন প্রতিবেদক, ভূঞাপুর: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে দুই সন্তানের বাবা সোহেল খান (৩০) এর বিরুদ্ধে এক স্কুলছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি এ নিয়ে গ্রাম্য সালিশে বিষয়টি সমাধান না হওয়ায় বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে স্কুলছাত্রী ও তার পরিবার। এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। অভিযুক্ত সোহেল উপজেলার মাদারিয়া গ্রামের গোলাপ খানের ছেলে। ভুক্তভোগী স্থানীয় একটি স্কুলের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী।

ওই স্কুলছাত্রী অভিযোগ করে বলেন, সোহেল স্কুলে আসা-যাওয়ার পথে নানা সময়ে উক্ত্যক্ত করতো এবং কু-প্রস্তাব দিতো। হঠাৎ একদিন সন্ধ্যায় বাড়ির পাশে এক দোকানে সওদা কিনে ফেরার পথে সোহেল জোর করে রাস্তা থেকে তুলে পাশের এক বাড়িতে নিয়ে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের বিষয়টি কাউকে জানালে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে হুমকি দিতো এবং বিয়ের কথা বলে মাঝে মধ্যে ধর্ষণ করতো। এ নিয়ে বহুবার সোহেলকে বিয়ের কথা বললে সে নানা অজুহাত দেখায় এবং ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ করেই যেতো। সম্প্রতি মাসখানেক আগে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে আমাকে চড় থাপ্পর মারে। পরে তিনি আমাকে বিয়ে করবে না বলে জানিয়ে গর্ভের সন্তান ফেলে দেয়ার জন্য একাধিক বার চাপ দেয়। গর্ভের সন্তান ফেলে না দিলে আমাকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। পরে বিষয়টি পরিবারকে জানাই।

ভুক্তভোগীর বাবা বলেন, আমি দিনমজুরের কাজ করি। ঠিকমতো বাড়িতেও থাকা হয় না জীবিকার তাগিদে। মেয়ের মা কানে কম শুনে। সোহেল আমাদের বাড়িতে বিভিন্ন সময় আসা-যাওয়া করতো। এনিয়ে তাকে বহুবার নিষেধও করেছি। কিন্তু সে মানেনি। পরে জানতে পারি আমার মেয়ের সাথে তার শারীরিক সর্ম্পকের কথা। এনিয়ে তার পরিবারকে জানালে উল্টো আমার মেয়েকে সোহেল মারধর করতো। এছাড়া সোহেল প্রভাবশালী হওয়ায় হুমকি দিয়ে আসছে নানাভাবে। যার কারণে নিরাপত্তাহীনতা ভুগছি।

এ ঘটনায় ফলদায় ইউপি চেয়ারম্যান সাইদুল ইসলাম তালুকদার দুদু জানান, মেয়ের অভিযোগে আমি কিছুদিন আগে ভূঞাপুর পৌরসভার কাউন্সিলর আল-আমিন, উপজেলা সাবেক মুক্তিযোদ্ধার ডেপুটি কমান্ডার আব্দুল জলিল খান, সাবেক ইউনিয়ন কমান্ডার আবুল কাশেম আজাদ, ইউপি সদস্য খাইয়ুল ইসলামসহ এলাকার মাতাব্বরদের নিয়ে গ্রাম্য সালিশে বসি। পরে সালিশে সোহেল ধর্ষণ ও বিয়ের প্রলোভনের কথা অস্বীকার করায় আমরা ভুক্তভোগী পরিবারকে আইনের আশ্রয় নেয়ার পরামর্শ দেই।

ভূঞাপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) মুহাম্মদ ফরিদুল ইসলমা জানান, মেয়েটিসহ তার বাবা গত শুত্রবার রাতে থানায় এসেছিল। পরে তারা বিস্তারিত বলার পর আমি তাদের মামলা রজু করার পরামর্শ দেই। শনিবার ৪ জুন সকালে আসার কথা ছিল। কিন্তু তারা না আসায় পুলিশ পাঠিয়ে তাদের আনার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে মামলাসহ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840