করটিয়ায় বসত বাড়ি ভাংচুর ও মহিলাদের কুপিয়ে জখম

করটিয়ায় বসত বাড়ি ভাংচুর ও মহিলাদের কুপিয়ে জখম

প্রতিদিন প্রতিবেদকঃ টাঙ্গাইল সদর উপজেলার করটিয়া পূর্ব পাড়া জমি সংক্রান্ত বিরোধে বসতবাড়ীতে ঢুকে বাড়ীঘর ভাঙচুর, মহিলাদের কুপিয়ে জখম ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। আহত মাধুরী বেগম (৫০) কে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার নম্বর-৪৯।

মামলা সূত্রে জানা যায়, বৃস্পতিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে উপজেলার করটিয়া পূর্ব পাড়া গ্রামের রমজান আলী (৫০), নাজিবর (৫০), আবু মিয়া (২৫), স্বাধীন (২০), আরিফ (২৬), সুমন (৩০) সহ সংঘবদ্ধ একদল সন্ত্রাসী একই গ্রামের রবি মিয়ার বসব বাড়িতে প্রবেশ করে অতর্কিতে হামলা চালায়। এ সময় তারা বাড়িঘর ভাঙচুর, সোকেজের তালা ভেঙ্গে স্বর্ণালঙ্কারসহ লক্ষাধিক টাকা লুটপাট, একটি গাড়ি (পিকআপ নং টাঙ্গাইল-ন-১১-০০৯৮) ভাঙচুর ও মহিলাদের বেধরক মারপিট করে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকাবাসীরা জানান, প্রতিবেশী এ দু পরিবারের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। এ বিষয়ে টাঙ্গাইল আদালতে মামলা করে রমজান গংরা হেরে যায়। এরপর তারা বিভিন্ন সময় ওই জমিটি জবর দখলের চেষ্টা করে। জবর দখলে ব্যর্থ হয়ে তারা এই পথ বেছে নেয়।

এসময় তারা আরো জানান, ঘটনার পর চেয়ারম্যান দুইদিনের মধ্যে ঘটনাটি মিমাংসার প্রতিশ্রুতি দিলেও আজও মিমাংসা হয়নি।

এ ঘটনায় মাধুরী বেগম (৫০), রবি মিয়া (৬০), বিউটি (৩০), সম্পা (১৯), চম্পা (২২), সুইটি (২৬) কে গুরুত্বর আহত অবস্থায় টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহতদের মধ্যে মাধুরী বেগমের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ২৮ ফেব্রুয়ারি রাতে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে তার মাথায় দুইবার অস্ত্রপাচার করা হয়।

এ বিষয়ে করটিয়া ইউপি চেয়ারম্যান খালেকুজ্জামান চৌধুরী মজনু বলেন, ঘটনাটি আমি ইতিপূর্বে অনেকবার মিমাংসার চেষ্টা করেছি কিন্তু কোন সুরাহা করতে পারিনি।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সায়েদুর রহমান জানান, ঘটনার বিষয়ে আমি অবগত হয়েছি, ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840