করোনা প্রভাবে অনেকটা রোগীশূন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল

করোনা প্রভাবে অনেকটা রোগীশূন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল

Tangail-pratidin

প্রতিদিন প্রতিবেদক: টাঙ্গাইল ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে রোগীর সংখ্যা অনেক কমে গেছে। অন্য যেকোন সময় প্রতিদিন গড়ে ৫০০ থেকে ৬০০ জন রোগী থাকে। অথচ সব ওয়ার্ড মিলে বর্তমানে প্রতিদিন গড়ে রোগী থাকে ১০০ থেকে ১৫০ জন। এখন শুধু এক্সিডেন্ট, মারামারি, পেট ব্যাথা ও স্ট্রোকের রোগীরাই বেশি আসছেন।

প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক এখন সর্বত্র। খুব বেশি প্রয়োজন না হলে কেউ ঘরের বাইরে বের হচ্ছেন না। কার্যত লকডাউনে রয়েছে সবাই। এজন্য জটিল কোন সমস্য না হলে এখন কেউ আর হাসপাতালে আসছেন না। হাসপাতালে ভর্তিতেও আগ্রহ কম রোগীদের। করোনা ভাইরাসের প্রভাবে অনেকটা রোগীশুন্য হয়ে পড়েছে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল।

বৃহস্পতিবার (০৩ এপ্রিল) হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, রোগীর কোন চাপ নেই। রোগীর স্বজনদের কোন ভীর নেই। অথচ অন্য সময় রোগী ও তাদের স্বজনদের ভীরে ঠেলে হাসপাতালে প্রবেশ করাই মুশকিল হয়ে যায়।

জরুরী বিভাগে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে কোন রোগী নেই। বসে আছেন কয়েকজন ডাক্তার, নার্স কথা হয় ডা.শফিকুল ইসলাম সজীবের সাথে তিনি বলেন, আমাদের হাসপাতালে ৫ জন ডাক্তারের ফোন নাম্বার দেওয়া আছে, কোন রোগী বাড়ীতে বসে পরামর্শ চায় তাহলে এই ডাক্তারা এস এম এস এর মাধ্যমে সেবা দিয়ে থাকেন।

ডা. সুজাইদ্দীনের সাথে কথা হলে তিনি জানান যে কোন সময়ে রোগী চলে আসতে পারে। তখনতো তাদের সেবা দিতে হবে। এজন্য আমরা আমাদের মত প্রস্তুত আছি।হাসপাতালে ভর্তির ক্ষেত্রে রোগীদের আগ্রহ কম। মহামারি করোনা ভাইরাসের কারনে রোগী ভর্তি কম। তাছাড়া অন্য সময়ে শতকরা ৩০/৪০ জন রোগী আসে আউটডোর থেকে ওষুধ নেওয়ার জন্য।

ভর্তি রোগী আবু হানিফ জানান, আমার পা ভাঙা বেশী সমস্যা না হলে হাসপাতালে এই সময়ে থাকতাম না। তারপরও আমি আমার কাছে বাড়তি কোন লোকজন আসতে দেই না, আমি যত তাড়াতাড়ি পারি বাড়ী চলে যাবো।

রোগীর স্বজন শামীম আল মামুন বলেন, মানুষের ভিতর এক্ষন ভয় কাজ করছে জ্বর, ঠান্ডা হলেই বাড়ীতে বসে চিৎকস্যা নেওয়ার চেষ্টা করেন। আমার মেয়ের গত ২৯.৩.২০ তারিখে রাতে জ্বর আসে ডাক্তারের সাথে আলাপ করলে বলেন আপনার রোগী আনতে হবে না আপনাকে এস এম এসর মাধ্যমে প্রেসক্রিপশন করে দিতেছি।এর মানে জ্বর ঠান্ডা রোগী দেখলে ডাক্তার যেমন ভয় পায় তেমনি রোগীও হাসপাতাললের নাম শুনলে ভয় পায়।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ মোঃ সদর উদ্দীন বলেন, আতঙ্কের কিছু নাই, হাসপাতাল রোগী সেবা দেওয়ার জায়গা এই জন্য আমরা আমাদের মতন প্রস্তুত আছি। যে কোন মহুর্ত আমাদের ৫ জন ডাক্তারকে মোকাবেলার জন্য রেখেছি। করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের জন্য ১০০ শয্যা বিশিষ্ট একটি বিশেষ ইউনিট খোলা হয়েছে। তবে এক্ষন পর্যন্ত করোনার উপসর্গ নিয়ে কোন রোগী এখানে আসে নাই।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840