সংবাদ শিরোনাম:
কালিহাতীতে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতার উপর হামলায় তোলপাড়

কালিহাতীতে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতার উপর হামলায় তোলপাড়

প্রতিদিন প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে আওয়ামী যুবলীগের নির্বাচনী পথসভায় হামলার শিকার হয়েছেন যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জহিরুল হক জাকির।

মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় কালিহাতী পৌরসভার মেয়র প্রার্থীর নির্বাচনী পথসভায় অংশ নিতে গিয়ে তিনি ওই হামলার শিকার হন।

বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ায় স্থানীয় পর্যায়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। এ ঘটনায় অনেকেই ওই হামলার তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করেন।

জানাগেছে, কালিহাতী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী নুরুন্নবী সরকারের পক্ষে শহীদ শফি সিদ্দিকী চত্ত্বরে স্থানীয় যুবলীগ এক পথসভার আয়োজন করে। সভায় কেন্দ্রিয় যুবলীগের জ্যেষ্ঠ প্রেসিডিয়াম মেম্বার অ্যাডভোকেট মামুনুর রশিদ মামুনের নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় যুবলীগের ১২ সদস্যের একটি টিম ওই পথসভায় অংশগ্রহন করে। কেন্দ্রীয় যুবলীগের ওই টিমের সদস্য জহিরুল হক জাকির মঞ্চে বক্তব্য শেষে পানি কেনার জন্য পাশের একটি দোকানে যান। সেখানে অজ্ঞাত ৪-৫ব্যক্তি লাকড়ি ও লাঠি নিয়ে তার উপর হামলা চালায়। তিনি দৌঁড়ে মঞ্চে পৌঁছলে হামলাকারীরা চলে যায়। এ ঘটনায় মঞ্চে থাকা কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা হতবিহ্বল হয়ে পড়েন। পরে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতৃবৃন্দ কোন রকমে সভা শেষ করে ঢাকায় চলে যান। বিষয়টি স্থানীয় পর্যায়ে ব্যাপক আলোচনা- সমালোচনার সৃষ্টি করেছে।

হামলার শিকার কেন্দ্রীয় আওয়ামী যুবলীগের সদস্য জহিরুল হক জাকির অভিযোগ করে বলেন, স্থানীয় এমপি হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারির অশির্বাদপুষ্ট স্থানীয় আজিজুল, মিনহাজ ও রানার নেতৃত্বে ৪-৫জন আমার উপর হামলা চালিয়েছে। আমার গ্রামের বাড়ি কালিহাতী উপজেলার পারখী ইউনিয়নের মাইজবাড়ী গ্রামে। রাজনৈতিক মতানৈক্যের কারণে এ হামলা চালানো হয়েছে। ঘটনাটি উপস্থিত নেতৃবৃন্দ ও কর্মী-সমর্থকরা প্রত্যক্ষ করেছে।

টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ওই পথসভার বিশেষ অতিথি ফারুক হোসেন মানিক বলেন, স্থানীয় কোন্দল বা দ্বন্দ্বের কারণে এ ঘটনাটি ঘটে থাকতে পারে। বিষয়টি অত্যন্ত দু:খজনক ও নিন্দনীয়। যেহেতু কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন তাই তাদের পরামর্শেই এ বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

কালিহাতী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি নুরুন্নবী সরকার বলেন, পথসভায় বক্তব্য রেখে আমি অন্যত্র গণসংযোগে ব্যস্ত হয়ে পড়ি। হামলার বিষয়ে আমি পুরোপুরি অবগত নই।

কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) সওগাতুল আলম বলেন, ঘটনাটি মৌখিকভাবে শুনেছি। এ বিষয়ে কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840