সংবাদ শিরোনাম:
ধনবাড়ীতে প্রাইভেটকার চাপায় নিহত ১ আহত ৪ ভূঞাপুরে ৩৭টি পূজা মন্ডপে পৌর মেয়রের আর্থিক অনুদান টাঙ্গাইল শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলমগীর সম্পাদক রৌফ সাফ জয়ী কৃষ্ণা রানী সরকার ও কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটনকে সংবর্ধনা দিয়েছে টাঙ্গাইল জেলা ক্রীড়া সংস্থা ভাসানীর মাজারে ন্যাপ ভাসানীর পুষ্পস্তবক অর্পণ গোপালপুরে কৃষ্ণাকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সংবর্ধনা নাগরপুরে এবারের দুর্গোৎসব হবে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় বজ্রপাত প্রতিরোধে বাতিঘর আদর্শ পাঠাগারের উদ্যোগে তালবীজ বপন বিএনপির মিথ্যাচার করে দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করছে -কৃষিমন্ত্রী হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অর্জনকারী তাকরীমকে সংবর্ধনা
কালিহাতীতে ফসল বাঁচাতে স্বেচ্ছাশ্রমের বাঁধ

কালিহাতীতে ফসল বাঁচাতে স্বেচ্ছাশ্রমের বাঁধ

প্রতিদিন প্রতিবেদক: গত কয়েক দিনের বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা ঢলে বাড়ছে নদ-নদীর পানি। এতে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার দশকিয়া ও সল্লা ইউনিয়নের প্রায় ২০টি গ্রামে রোপনকৃত আমন ধান তলিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় রয়েছেন কৃষকরা। ফসল রক্ষায় উপজেলার হাতিয়ায় এলংজানী নদীর তীরে ঝুঁকিপূর্ণ দু’টি স্থানে স্বেচ্ছায়শ্রমে কয়েকশত কৃষক বাঁধ নির্মাণ করছেন।

সরেজমিনে দেখা যায়, ৭-৮ গ্রামের শতাধিক কৃষক নিজেদের ফসল বাঁচাতে বালু ভর্তি বস্তা দিয়ে হাতিয়া এলাকায় নদীতীরে বাঁধ দিচ্ছেন। গত ৬ দিন যাবত একাধারে দুটি স্থানে প্রায় আড়াই শত ফুট জায়গা জুড়ে এ বাঁধ হচ্ছে।

কৃষক আব্দুল আজিজ, লুৎফর রমান, ইউসুফ ও আরজু শেখসহ অনেকে বলেন, সল্লা, দেউপুর, হাতিয়া, ভাওয়াল, বিল ছাইয়া, আনালিয়াবাড়ী, নরদহিসহ প্রায় ২০টি এলাকায় আমন ধানের আবাদ হয়েছে। অসময়ে পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং হাতিয়া এলাকায় এলংজানী নদীর তীরে ভাঙন হওয়ায় আমরা দুশ্চিন্তায় রয়েছি। এভাবে ৩-৪ দিন পানি বাড়লে ২০ গ্রামে রোপনকৃত ধান ডুবে আমাদের স্বপ্ন ভেসে যাবে। সরকারি সহায়তায় কাজ হলে আমাদের এত ভোগান্তি পোহাতে হতো না। আমরা স্থায়ী টেকসই বাঁধ চাই।

দশকিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ মালেক ভূইয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, কৃষকরা ফসল বাঁচাতে হাতিয়া এলাকায় বাঁধ দিচ্ছেন। আমি জানার পর সেখানে বস্তা পাঠিয়েছি। প্রয়োজনে আরো সহযোগিতা করবো।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হুসেইন বলেন, স্বেচ্ছাশ্রমের বাঁধের বিষয়টি আমি অবগত হয়েছি। তাৎক্ষণিকভাবে সরকারি সহযোগিতা করার ব্যবস্থা নেই। তবে স্থানীয় চেয়ারম্যানকে গ্রামবাসীদের সহযোগিতা করার কথা বলেছি। পরবর্তীতে বাঁধের ব্যাপারে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়া হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840