সংবাদ শিরোনাম:
দেলদুয়ার থানা পরিদর্শন করেন পুলিশ সুপার কালিহাতীতে সাংবাদিকদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ টাঙ্গাইলে শুটিং ট্যালেন্ট হান্ট প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে পিকআপ ভ্যান-মোটরসাইকেলের সংঘর্ষে কৃষি কর্মকর্তাসহ দুইজন নিহত সখীপুরে দেশি প্রজাতির বৃক্ষরোপণ কর্মসূচীর উদ্বোধন ধনবাড়ী পৌরসভার উদ্যোগে  ভিজিএফ এর চাল বিতরন দেলদুয়ারে ৩৯৫ জন মেধাবী শিক্ষার্থীকে স্পন্দনবি বৃত্তি প্রদান গোপালপুরে সন্তান হত্যার পর বিষপান বাবার পর মায়ের মৃত্যু কালিহাতীতে জীবিতকে মৃত দেখিয়ে ইউপি সদস্যর শ্বাশুড়ি নামে বিধবা কার্ড টাঙ্গাইলে “টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জন এবং নৈতিক শিক্ষার প্রসার বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত
টাঙ্গাইলে গৃহবধূর গায়ে এসিড নিক্ষেপ, স্বামী পলাতক

টাঙ্গাইলে গৃহবধূর গায়ে এসিড নিক্ষেপ, স্বামী পলাতক

বিশেষ প্রতিবেদক: টাঙ্গাইল পৌরশহরের গোডাউন বাজার এলাকায় ছোঁয়া আক্তার নামে এক গৃহবধূকে এসিড ছুঁড়ে পালিয়েছে তার স্বামী।

এসিডে ওই গৃহবধূর মুখের এক অংশ ও শরীরের বিভিন্ন অংশ ঝলসে গেছে।

তাকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে প্রেরন করে।

২৬ জুন সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। গৃহবধূ ছোঁয়া আক্তারের বাবার নাম মেহেদী হাছান রতন। টাঙ্গাইল পৌর শহরের গোডাউন বাজার এলাকায় একটি বহুতল ভবনের তয় তলায় মায়ের সাথে ভাড়া বাসায় থাকতো ছোঁয়া। তার ১১ মাস বয়সি একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।
ছোঁয়ার মা সাথী খানম অভিযোগ করে বলেন, প্রায় দেড় বছর আগে টাঙ্গাইল পৌরশহরের আশেকপুর এলাকার মৃত সাত্তার মিয়ার ছেলে সুমন বাপ্পীর সাথে আমার মেয়ে ছোঁয়ার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই আমার মেয়েকে বিভিন্ন কারনে নির্যাতন করতো। পরে আমার মেয়ে তার স্বামীর সাথে সংসার করবে না বলে আমার কাছে চলে আসে। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় আমার মেয়েকে ফোন করে বলে সন্তানের জন্য মাল্টা ও শিশু খাদ্য নিয়ে এসেছে। নিচে নেমে সেগুলো নেওয়ার জন্য। পরে আমার মেয়ে তার ১১ মাসের ছেলে সন্তানকে আমার কাছে রেখে নিচে যায় খাবার গুলো আনার জন্য। এর কিছুক্ষন পর চিৎকার ও কান্নার শব্দ শুনে আমি নিচে গিয়ে দেখি আমার মেয়ে মাটিতে পড়ে রয়েছে আর চিৎকার করছে। পরে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় মেয়েকে প্রথমে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাই। পরে সেখান থেকে ডাক্তার ঢাকায় পাঠায়। আমি আমার মেয়েকে বাঁচানোর জন্য ঢাকায় যাচ্ছি। আমার মেয়ের যে এতো বড় ক্ষতি করছে তার বিচার চাই। আপনারা তার বিচার করেন। আমার মেয়ের জন্য দোয়া করবেন।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই আতিকুর রহমান জানান, গৃহবর্ধকে এসিড নিক্ষেপ করার পর তার স্বামী পালিয়ে গেছে। তাকে আটকের চেষ্ঠা করা হচ্ছে। গৃহবধূকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়েছে। এ বিষয়ে টাঙ্গাইল সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840