টাঙ্গাইলে বৃক্ষ মেলায় এক ব্যবসায়ীর ওপর হামলা

টাঙ্গাইলে বৃক্ষ মেলায় এক ব্যবসায়ীর ওপর হামলা

প্রতিদিন প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলে বৃক্ষ মেলায় এক ব্যবসায়ীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। সোমবার (৮ জুলাই) দুপুরে টাঙ্গাইল শহীদ স্মৃতি পৌর উদ্যানে বৃক্ষমেলায় এ হামলার ঘটনা ঘটে। এ বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছেন মেলা কর্তৃপক্ষ। হামলার ঘটনায় ভুক্তভোগী মনির হোসেন বাদী হয়ে সীমান্ত চৌহান নামে এক বখাটের বিরুদ্ধে টাঙ্গাইল সদর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, টাঙ্গাইল পৌরসভার ১১ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মুন্না চৌহানের ছেলে সীমান্ত চৌহান। চাকরির জন্য জামানত হিসেবে মনির হোসেন কে ১ লক্ষ টাকা দেন। চাকরি না হওয়ায় মনির হোসেন তাকে (সীমান্ত) কে আসল টাকা পরিশোধ করে দেন। সীমান্ত টাকা ঋণ করে চাকরির জন্য দেওয়ায় সেই লাভের (সুদের) টাকার জন্য মনির হোসেনের ওপর চাপ দিতে থাকে। এ বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে অনেকদিন ধরেই বিরোধ চলছিল। সেই বিরোধ কে কেন্দ্র করে সোমবার টাঙ্গাইল বৃক্ষ মেলায় মনির হোসেনের দোকানে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও কিল গুসি দিয়ে আহত করে ও তার সাথে থাকা বিশ হাজার টাকা নিয়ে যায় ও হুমকি প্রদান করে তোর কে আছে নিয়ে আয়। পরে মেলা কর্তৃপক্ষ এসে মনির হোসেন কে উদ্ধার করেন।
এ বিষয়ে মনির হোসেন বলেন, অভিযুক্ত সীমান্ত চৌহান দুর্দান্ত দাঙ্গাবাজ, বখাটে ও উগ্র প্রকৃতির ছেলে। নানা অপকর্ম চলে ওই ছেলে। চাকরি জন্য দেয়া টাকা তাকে ফেরত দেওয়া হলেও সে লাভের টাকা আমার কাছে চায়। লাভের টাকা না দেওয়ায় আমার ওপর এ হামলা। তিনি আরও বলেন, আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে আমি এ হামলার পাল্টা হামলা করলাম না। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর প্রতি তার অনুরোধ হামলাকারি সীমান্তকে আইনের আওতায় আনা হোক।
মেলা পরিচালনা কমিটির সভাপতি শহিদুজ্জামান মোস্তফা জানান, হামলার সাথে সাথে আমরা ডিউটিরত পুলিশ সদস্যদের অবগত করলে হামলাকারি পালিয়ে যায়। চোখের পলকেই হামলার ঘটনা ঘটবে কেউ বুঝে উঠতে পারে নাই। সবাই কাজে ব্যস্ত থাকায় দ্রুত সময়ে এ ঘটনাটি ঘটেছে।
তিনি আর বলেন, ইতিপূর্বে বৃক্ষ মেলায় হামলার কোন ঘটনা ঘটে নাই। এ হামলার ঘটনায় তিনি তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন মনির খুব ভাল ছেলে। তার ওপর হামলা মেনে নেওয়া যায় না।
সীমান্ত চৌহানের মুঠো ফোনে বার বার চেষ্টা করা হলেও ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।
তদন্ত কর্মকর্তা (এস আই) নজরুল ইসলাম জানান, বৃক্ষ মেলায় হামলার ঘটনার লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। গুরুত্বপূর্ণ তদন্ত কাজে ব্যস্ত থাকায় তাকে আটক করা যায়নি। তবে দু-এক দিনের মধ্যে অভিযুক্তকে আটক করা হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840