টাঙ্গাইলে স্কুল ছাত্রী অপহরণ করে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় রায়ে তিন যুবকের মৃত্যুদন্ড

টাঙ্গাইলে স্কুল ছাত্রী অপহরণ করে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় রায়ে তিন যুবকের মৃত্যুদন্ড

প্রতিদিন প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলে এক স্কুল ছাত্রীকে অপহরণ করে ধর্ষণ ও হত্যা মামলার রায়ে তিন যুবককে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল। বৃহস্পতিবার দুপুরে ট্রাইব্যুনালের বিচারক খালেদা ইয়াসমিন এ রায় ঘোষনা করেন। রায়ে নির্দোষ প্রমানিত হওয়ায় একজনকে খালাশ দেওয়া হয়।

মৃত্যুদন্ডে দন্ডিতরা হলো- টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার বেঙ্গুলা গ্রামের মৃত নগেন চন্দ্র দাসের ছেলে কৃষ্ণ চন্দ্র দাস (২৮), ধনবাড়ী উপজেলার ইসপিনজারপুর গ্রামের মো: মোশারফ হোসেনের ছেলে সৌরভ আহমেদ ওরফে হৃদয় (২৩) ও একই এলাকার মৃত মজিবর রহমানের ছেলে মো: মিজানুর রহমান (৩৭)।

মামলায় খালাশ প্রাপ্ত হলেন- টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলার ইসপিনজারপুর গ্রামের মো: গিয়াস উদ্দিনের ছেলে মো: মেহেদি হাসান ওরফে টিটু (২৮)।
টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিষেশ পিপি আলী আহম্মেদ জানান, টাঙ্গাইলের গোপালপুর উপজেলার জয় নগর গ্রামের মো: খোকন মিয়ার মেয়ে খোদেজা খাতুন ২০২১ সালের ২ আগষ্ট দুপুরে গোপালপুর উপজেলার মনতলা গ্রামে নানীর বাড়ীতে বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে নিজ বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। খোদেজা বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন বিভিন্নস্থানে খোজাখোজি করে। পরে ৪ আগষ্ট ভূঞাপুর থানা পুলিশ ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কের পাশ থেকে একটি অজ্ঞাত মেয়ের লাশ উদ্ধার করে। পরিচয় সনাক্ত না হওয়ায় লাশের সুরতহাল ও ময়না তদন্ত শেষে ছাব্বিশা গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়। ৫ আগষ্ট খোদেজার বাবা ভূঞাপুর খানায় গিয়ে ছবি দেখে তার মেয়ের লাশ হিসেবে সনাক্ত করে। পরে ভূঞাপুর থানায় ৬ আগষ্ট অজ্ঞাতনামা আসামী করে মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) মামলাটি তদন্ত করে হত্যার রহস্য উদঘাটনসহ চারজন আসামীকে গ্রেফতার করে। ৮ আগষ্ট গ্রেফতারকৃত চারজনই অপহরণ, ধর্ষণ ও হত্যার কথা স্বীকার করে আদালতে স্বীকারোক্তীমূলক জবানবন্দি দেয়। দন্ডিত আসামী কৃষ্ণ চন্দ্র দাস মোবাইল ফোনের মাধ্যমে নিজেকে মুসলিম পরিচয় দিয়ে খোদেজার সাথে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তুলে। পরে ঘটনার দিন রেস্টুরেন্টে খাওয়া দাওয়া ও মার্কেট করে দেওয়া কথা বলে ডেকে নিয়ে দন্ডিত আসামী হৃদয় ও মিজানের সহযোগীতায় ডিসিষ্টের সাথে একাধিকবার ধর্ষণ করে। পরবর্তীতে খোদেজাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করার পর বস্তাবন্দি অবস্থায় ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কের পাশে খোদেজার লাশ ফেলে চলে যায়।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840