সংবাদ শিরোনাম:
মধুপুরে বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে জরিমানা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মাভাবিপ্রবি পরিবারের শ্রদ্ধা নিবেদন টাঙ্গাইলে আওয়ামীলীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী উদযাপিত বাসাইলে বজ্রাঘাতে কৃষকের মৃত্যু অচিরেই দেখা যাবে বিএনপি খণ্ডবিখণ্ড হয়ে পড়েছে: সাবেক কৃষিমন্ত্রী টাঙ্গাইলে প্রাইভেটকার-মাহিন্দ্রার সংঘর্ষে নিহত ২ স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষার পাশাপাশি খেলাধুলার বিকল্প নেই: শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী টাঙ্গাইলে ২হাজার ৮২টি ঈদুল আজহার জামাতের মাঠ প্রস্তুত টাঙ্গাইলে গরুর হাটের নিরাপত্তা ও মহাসড়কের যানজট নিরসনে কাজ করছে RAB টাঙ্গাইলে ১০৮ বোতল বিদেশী মদসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক
টাঙ্গাইলে হারভেস্টার মেশিনে ধান কাটার মজুরি বৃদ্ধি

টাঙ্গাইলে হারভেস্টার মেশিনে ধান কাটার মজুরি বৃদ্ধি

প্রতিদিন প্রতিবেদক: ধান কাটার শ্রমিক সঙ্কটে ও কৃষকদের সাশ্রয়ে সরকার প্রযুক্তি ব্যবহারে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন আনলেও মালিকরা সিন্ডিকেট করায় টাঙ্গাইলের সাধারণ ও প্রান্তিক কৃষক তার সুফল থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। টাঙ্গাইলে মালিকদের এই সিন্ডিকেটের নেতৃত্ব দিচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের এক নেতা, এমন অভিযোগ ওঠেছে।
জানাগেছে, গত বছর ডিসেমল প্রতি জমির ধান কাটতে যেখানে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিনের মালিক নিতো ৬০ থেকে ৭০ টাকা। এক বছরের ব্যবধানে এ বছর ডিসেমল প্রতি দাম বাড়িয়ে করা হয়েছে ১’শ থেকে ১১০টাকা। ফলে কৃষকের বিঘা প্রতি বাড়তি ১ হাজার টাকা বেশি গুনতে হচ্ছে। তবে হারভেস্টার মেশিন মালিকদের দাবি তেলের দাম বৃদ্ধি হওয়ায় ডিসেমল প্রতি এ বাড়তি টাকা নেওয়া হচ্ছে।
সরেজমিনে, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়নের বিল ঘারিন্দা, গালা ইউনিয়নের কান্দিলা, সধিলাপুর এলাকায় কৃষক কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন দিয়ে ধান কাটছে। কথা হয় মালিক ও কৃষকদের সাথে কৃষকরা জানায় গত বছর কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন দিয়ে ধান কাটতে অনেকটা সাশ্রয় হতো। কিন্তু এবার বিঘা প্রতি ১ হাজার টাকা বেশি লাগায় তেমন সাশ্রয় হয়না। অপরদিকে, মালিকরা জানান এবার তেলের দাম বেশি থাকায় ডিসেমল প্রতি ৩০ থেকে ৪০ টাকা বাড়িয়ে নিচ্ছি। শুধু তেলের দাম বৃদ্ধি নাকি কোন সিন্ডিকেটের কারণে মুল্যে বৃদ্ধি পেয়েছে এমন প্রশ্নে মালিকরা কোন উত্তর দেয়নি।
অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, সম্প্রতি টাঙ্গাইল জেলায় কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন মালিক সমিতি নামে একটি সংগঠন করে উঠেছে। আর সেই সংগঠনের সভাপতি ছাত্র কল্যাণ পরিষদের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি প্রার্থী মো. মনির সিকদার। অভিযোগ রয়েছে মনির সিকদার সভাপতি হওয়ার পরপরই এই সিন্ডিকেটের তৈরী হয়।
সদর উপজেলার বিল ঘারিন্দা, পয়লা, কান্দিলা এলাকার কৃষক তামিম হাসান, শান্ত মিয়া, কেরামত আলী, বাসাইল উপজেলার কাশিল ইউনিয়নের দাপনাজর গ্রামের ফয়সাল আহমেদ,জমির আলী,ওয়ারেছ মিঞা জানান,গত বছর ধান কাটর জন্য বগুড়াসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন আনতাম। দাম কিছুটা কমও দিতে পারতাম। শুনলাম এবার আমাদের এখানে হারভেস্টার মেশিন ভাগ করে দেওয়া হয়েছে। তার বাহিরে কোন মেশিন দিয়ে ধান কাটা যাবেনা। এলাকাগতভাবে ধান কাটার জন্য হারভেস্টার মেশিন নির্ধারণ করে দেওয়ার সুযোগে মালিকরা দাম বাড়িয়ে নিচ্ছে, নিরুপায় হয়ে আমাদেরও দিতে হচ্ছে।
এ বিষয়ে টাঙ্গাইল ছাত্রকল্যাণ পরিষদের সভাপতি ও কম্বাইন হারভেস্টার মালিক মনির সিকদার জানান, জেলায় হারভেস্টার মেশিন মালিক সমিতি নামে কোন সংগঠন তৈরি হয়নি। আমার বিরুদ্ধে একটি মহল রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করার জন্য ষড়যন্ত্র করছে।
টাঙ্গাইল জেলা কৃষিসম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক কৃষিবিদ আহসানুল বাশার জানান, আমরা কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন কিনতে কৃষককে সরকার থেকে যে সাবসিটি দেওয়া হয়, তার সহযোগিতা করে থাকি। সাধারনত যে উপজেলা জন্য মেশিনটি কেনা হয়,কৃষকদের উৎসাহীত করি সেই উপজেলায় কাজ করার জন্য। এর বাইরে কৃষিসম্প্রসারণ বিভাগ ধান কাটার ব্যাপারে কোন মুল্যে নির্ধারণে হস্তক্ষেপ করে না।
তিনি আরও জানান, ইতোমধ্যে জেলায় ১ লাখ ৭৫ হাজার হেক্টর জমির ধান কাটা হয়ে গেছে। তবে ধান কাটায় মালিকদের সিন্ডিকেটের বিষয়ে জানতে পারিনি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840