দুই বছর পর মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত স্বামী-শ^শুরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব

দুই বছর পর মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত স্বামী-শ^শুরকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব

প্রতিদিন প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূ তাসলিমা আক্তারকে পানিতে চুবিয়ে হত্যার দায়ে তার স্বামী ও শ্বশুরকে মৃত্যুদন্ড দেন আদালত। সাজা এড়াতে গত ২ বছর ধরে তারা নানা কৌশলে আত্মগোপনে ছিলেন।

সোমবার ৫ ডিসেম্বর ভোরে নারায়ণগঞ্জ থেকে তাদের গ্রেপ্তার গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

পরে বিকেলে গ্রেফতারকৃতদের টাঙ্গাইলের ভূঞাপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- তাসলিমা আক্তারের স্বামী জহুরুল ইসলাম (৩১) ও শ্বশুর মো. মজনু (৬১)। তাদের বাড়ি ভূঞাপুর উপজেলার অর্জুনা গ্রামে।

র‌্যাব-১৪ এর ৩ নম্বর কোম্পানি অধিনায়ক অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের বলেন, ‘২০১৬ সালের ২৩ নভেম্বর জহুরুল ইসলাম তার স্ত্রী তাসলিমা আক্তারকে পানিতে চুবিয়ে হত্যা করেন। পরে লাশ নদীতে ভাসিয়ে দেন। এই হত্যাকান্ড ও লাশ গুমে তাকে সহায়তা করেন মজনু।’ তিনি বলেন, ‘এ ঘটনায় তাসলিমার বাবা বাদী হয়ে ভূঞাপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে পুলিশ মজনু ও জহুরুলকে গ্রেপ্তার করে। তারা আদালতে দোষ স্বীকার করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে তারা যৌতুক না দেওয়ায় তাসলিমাকে হত্যা করে লাশ গুমের কথা স্বীকার করেন।’

রফিউদ্দীন মোহাম্মদ যোবায়ের আরও বলেন, ‘সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক ২০২০ সালের ৩১ আগস্ট তাদের মৃত্যুদন্ডের আদেশ দেন। মামলা চলাকালে তারা জামিন নিয়ে পালিয়ে যান।’

র‌্যাব আরো জানায়, গ্রেপ্তারকৃতরা সাজা এড়াতে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার গোয়ালদি খান বাজার এলাকায় গরুর খামারে চাকরি নেন। সেখানেই পরিচয় গোপন করে থাকতেন। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে র‌্যাব সোমবার ভোরে তাদের গ্রেপ্তার করে বিকেল ভূঞাপুর থানায় হস্তান্তর করে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840