সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে ১৬ সরকারি প্রতিষ্ঠানে উড়ছে না জাতীয় পতাকা টাঙ্গাইলে ওয়ালটনের নন স্টপ মিলিয়নিয়ার অফার উপলক্ষে র‌্যালী কালিহাতীতে আওয়ামীলীগ-সিদ্দিকী পরিবার মুখোমুখি টাঙ্গাইলের তিন উপজেলায় মাঠ-ঘাট চষে বেড়াচ্ছেন প্রার্থীরা টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে বজ্রপাতে দুই ভাইয়ের মৃত্যু রংপুরে শুরু হয়েছে শেখ হাসিনা অনুর্ধ্ব-১৫ টি টোয়েন্টি প্রমীলা ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ঘাটাইল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চশমা প্রতীক নিয়ে সাংবাদিক আতিক জনপ্রিয়তায় শীর্ষে ও জনসমর্থনে এগিয়ে ঘাটাইলে সেলাই মেশিন মার্কায় ভোট চাইলেন পৌর মেয়র আব্দুর রশীদ মিয়া টাঙ্গাইলে পুটিয়াজানী বাজারে দোকান ঘর ভাঙ্গচুরের অভিযোগ দেবরের বিরুদ্ধে সিরাজগঞ্জে ২১৬ কেজি গাঁজাসহ আটক ২ ; কাভার্ড ভ্যান জব্দ সাফল্য অর্জনেও ব্যতীক্রম নয় জমজ দুই বোন,  লাইবা ও লামিয়া দুজনেই পেলেন জিপিএ- ৫
নথখোলা ঝিনাই নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের মহোৎসব

নথখোলা ঝিনাই নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের মহোৎসব

প্রতিদিন প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি, ইউপি সদস্য ও দলীয় ক্ষমতার অপব্যবহার করে অবৈধভাবে নথখোলার ঝিনাই নদী থেকে অবাধে বালু উত্তোলন করছে একটি মহল। অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করলেও প্রশাসনের ভূমিকা নিরব । অবাধে নদী থেকে বালু উত্তোলন অব্যাহত থাকলে নদীর পাশেই মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ব, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ নদী পাড়ের মানুষদের থাকার মত কোন জায়গা থাকবে না বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।

জানা যায়, বাসাইল উপজেলার কাশিল ইউনিয়নের নথখোলা এলাকা দিয়ে বয়ে গেছে ঝিনাই নদী। এ নদীর উপর নির্মিত একটি সেতু এবং তার দু পাশে রয়েছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও মুক্তিযুদ্ধের স্বরণে স্মৃতিস্তম্ভ। আর এ নদীর দু’পাড়ে রয়েছে বসতবাড়ি ও ফসলী জমি। বিগত বছরে এ নদী থেকে অবাধে বালু উত্তোলন করার ফলে ইতিমধ্যে একটি শহীদ মিনার নদী গর্ভে বিলীনসহ প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একাংশ এবং নদী ভাঙ্গনের স্বীকার হয়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে স্থানীয়রা।

এবছরও শুরু হয়েছে নদী থেকে অবৈধ বালু উত্তোলন। অবৈধভাবে এ বালু উত্তোলন করায় ঝিনাই নদীর উপর নির্মিত সেতুটি ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। সেই সাথে নদীর পাড় ঘেসে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ব ও দুইটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বালু উত্তোলনের ফলে ধুলা বালির কারনে সড়ক দিয়ে চলাচলেও সমস্যা দেখা দিয়েছে সাধারন জনগণের। এ নিয়ে প্রতিবাদ করেও কোন ফল পাচ্ছে না স্থানীয়রা।

সরেজমিনে দেখা যায়, নথখোলার ঝিনাই নদী থেকে ভেকু দিয়ে অবাধে বালু উত্তোলন করে প্রতিদিন প্রায় শত শত ট্রাক ও মাহিন্দ্র ট্রাক্টর দিয়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় বালু বিক্রি করা হচ্ছে। এ নদী থেকে বিগত দিনগুলোতে বালু উত্তোলনের ফলে নদীর পাড়ে একটি শহীদ মিনার নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।

প্রায় সারা বছর ধরেই কোন না কোন প্রভাবশালী মহল এ নদী থেকে প্রতিনিয়ত বালু উত্তোলন করে আসছে। ফলে নদী ভাঙ্গনসহ বিভিন্ন স্থাপনা নদী গর্ভে বিলীন হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। বর্ষার পানি আসতে শুরু করলেই যে কোন মুর্হূতে দেখা দিতে পারে ভাঙ্গন।

এলাকাবাসী জানায়, এ নদী থেকে প্রতি বছর প্রভাবশালী একটি মহল অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করে যাচ্ছে। ফলে প্রতি বছর বন্যা ও তার পরবর্তী সময়ে ব্যাপক ভাঙ্গন দেখা দিচ্ছে। নদী পাড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, কবরস্থান, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিস্তম্ভসহ কয়েকটি বসতবাড়ী রয়েছে ঝুঁকির মধ্যে। আমরা চাই এ নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধ হোক।

এ বিষয়ে বালু ব্যবসায়ীদের একজন আলমগীর ও তার সহযোগীদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা কথা বলতে রাজী হয়নি।

টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম বলেন, ঝিনাই নদীতে পানি উন্নয়ন বোর্ডের কোন অনুমতি কিংবা নদী খনন প্রকল্প নেই। যারা এ নদী থেকে বালু উত্তোলন করছে তা সম্পূর্ন অবৈধ। আমি এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসনের সাথে কথা বলেছি। তারা আমাকে বলেছেন দ্রুত এ বিষয়ে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840