মির্জাপুরে ৯ হাজার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষী পেল সার ও বীজ

মির্জাপুরে ৯ হাজার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষী পেল সার ও বীজ

প্রতিদিন প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে চলতি রবি মৌসুমে প্রায় ৯ হাজার ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের মাঝে বিনামূল্যে সার ও বীজ বিতরণ করা হয়েছে।

সব ধরনের জমি চাষাবাদে নিয়ে আসতে প্রণোদনা কর্মসূচীর আওতায় এই বীজ ও সার বিতরণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

মির্জাপুর উপজেলা কৃষি বিভাগ সূত্র জানান, ২৫০ জন ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক চাষীকে মাসকালাই বীজ ও সার দেয়া হয়েছে। ১ বিঘা জমির জন্য প্রতিজন কৃষক ৫ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ৫ কেজি এমওপি সার পেয়েছেন। এছাড়া ২ হাজার ৬শ কৃষকের প্রত্যেককে ১ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার দেয়া হয়েছে। ৮শ জন কৃষকের প্রত্যেককে ২০ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি সার দেয়া হয়েছে। ৫শ জন কৃষককে ভূট্টা চাষের জন্য ২ কেজি করে বীজ, ২০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি দেয়া হয়েছে। ৫শ জন কৃষককে সূর্যমুখী বীজ ও সার দেয়া হয়েছে। এদের প্রতি জনকে ১ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি এবং ১০ কেজি এমওপি দেয়া হয়েছে। ১শ জন কৃষককে মসুরের বীজ ও সার দেয়া হয়েছে। তাদের প্রতিজন ৫ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি ও ১০ কেজি এমওপি দেয়া হয়েছে। ১৫০ জন কৃষককে খেসারীর বীজ দেয়া হয়েছে। প্রতিজনকে ৮ কেজি বীজ, ১০ ডিএপি ও ৫ কেজি এমওপি সার দেয়া হয়। ৭শ জন কৃষকের প্রতিজনকে ২ কেজি করে হাইব্রিড বোরো ধানের বীজ দেয়া হয়েছে। তাছাড়া ৩ হাজার ৩শ কৃষককে উফশী জাতের ধানের বীজ ও সার দেয়া হয়েছে। প্রতিজন কৃষককে ৫ কেজি বীজ, ১০ কেজি ডিএপি এবং ১০ কেজি এমওপি সার এছাড়াও ১৩শ ২০ জন কৃষককে সবজী বীজ দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার পাল বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকল প্রকার জমি চাষাবাদে আনার লক্ষে যে নির্দেশনা দিয়েছেন সেই লক্ষ পূরণে প্রনোদনা কর্মসূচীর আওতায় কৃষকদের এই বীজ ও সার দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840