সখীপুরে এক ভোট পেলেন মেম্বার প্রার্থী

সখীপুরে এক ভোট পেলেন মেম্বার প্রার্থী

আমিনুল ইসলাম, সখীপুর: টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য মোখলেছুর রহমান এবারও নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন। তাঁর প্রতীক ছিল তালা। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে মাত্র একটি ভোট পেয়েছেন। এ নিয়ে তার নিজ এলাকায় ব্যাপক সমালোচনার ঝড় বইছে। এলাকাবাসীর প্রশ্ন ওই এক ভোট কার। স্ত্রী না নিজেরই। প্রার্থীর শ্বশুর বাদশাহ মিয়া একই ওয়ার্ডের ভোটার। শাশুড়িসহ শ্বশুর বাড়িতে মোট ৮টি ভোট রয়েছে। তাঁর নিজের বংশেও কমপক্ষে ৫০টি ভোট রয়েছে। উল্লেখ্য, উপজেলার গজারিয়া ও দাড়িয়াপুর ইউনিয়নে গত বুধবার ইভিএমে ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ভোটাররা ইছাদিঘীরপাড় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন। ওই কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা এক হাজার ৪৪৯। ভোট পড়েছে (কাস্টিং) এক হাজার ১২১টি। ওই ওয়ার্ডে মোরগ প্রতীকে কহিনুর ইসলাম ৪৬২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। এতে মোট চারজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এরমধ্যে সদ্য বিদায়ী ইউপি সদস্য মাত্র এক ভোট পাওয়ায় আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, ২০১৭ সালের নির্বাচনে মোখলেছুর রহমান বিজয়ী হলে গ্রামবাসী তাঁকে টাকার মালা গলায় পরিয়ে মিছিলসহকারে পুরো গ্রাম জুড়ে ঘুরে বিজয় উল্লাস করেন। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, নির্বাচিত হয়ে গত পাঁচ বছরে ওই গ্রামের কোনো উন্নয়ন করেননি। বিধবা ও বয়স্ক ভাতা দেওয়ার কথা বলে কয়েকজনের কাছ থেকে টাকা গ্রহণ করলেও তাঁদের ভাতার কার্ড করে দিতে পারেনি। এবার মনোনয়ন জমা দেওয়ার পর প্রতীক পেয়ে প্রচারণা শুরু করলেও পাওনাদারদের চাপে তিনি শেষ মুহুর্তে নির্বাচনী প্রচারণা থেকে সরে দাঁড়ান।

মোখলেছুর রহমান বলেন, মাঠের অবস্থা ভালো নয় বুঝতে পেরে আমি নিজে থেকেই বাদ দিয়েছিলাম। আমার ভোটও আমি দেইনি। আমার স্ত্রীও আমাকে ভোট দেয়নি। প্রকৃতপক্ষে কেউ ভুলক্রমে আমার প্রতীকে ভোট দিতে পারে।

উপজেলা নির্বাচন ও রিটার্নিং কর্মকর্তা আতাউল হক বলেন, শুনেছি তিনি মাত্র এক ভোট পেয়েছেন। এর কারণ হিসেবে জানতে পারলাম তিনি শেষ মুহুর্তে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছিলেন। তাঁর সরে দাঁড়ানোর বিষয়টি আমার জানা ছিল না।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840