সংবাদ শিরোনাম:
ভূঞাপুরে চড়াই উৎরাইয়ের মধ্য দিয়ে সবার মনোনয়ন বৈধ কালিহাতীতে পৌলীতে রেল সেতুর দুই পাশে বালু বিক্রির মহোৎসব মাদরাসা ছাত্রীর প্রেমের টানে ও ঘর বাঁধতে টাঙ্গাইলে আরেক ছাত্রী মধুপুরে জৈব কৃষি ব্যবস্থাপনা বিষয়ক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত তীব্র গরম ও তাপদাহে অতিষ্ঠ মধুপুরবাসী বাড়ছে নানা রোগ সখীপুরে প্রকৃতি ও শান্তি সংঘের উদ্যোগে গাছের চারা বিতরণ টাঙ্গাইলের বাসাইল থেকে ৪৯ কেজি গাঁজা সহ ০৪ মাদক ব্যবসায়ী আটক পৌর উদ্যানের শতবর্ষী গাছ কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন  টাঙ্গাইলে পারিবারিক কলহে পিতাকে পিটিয়ে আহত করেছে ছেলে সিরাজগঞ্জে পুলিশের উপর হামলা, মদ ও অস্ত্রসহ আ.লীগ নেতার স্ত্রী আটক
সখীপুরে ফাইলা পাগলা মেলার ৫০-৬০টি ‘গাঁজা খাওয়ার’ আস্তানা ভেঙে দিয়েছে পুলিশ 

সখীপুরে ফাইলা পাগলা মেলার ৫০-৬০টি ‘গাঁজা খাওয়ার’ আস্তানা ভেঙে দিয়েছে পুলিশ 

আমিনুল ইসলাম,সখীপুর : টাঙ্গাইলের সখীপুরে ফাইলা পাগলার মেলায় অভিযান চালিয়ে ৫০-৬০টি ‘গাঁজা খাওয়ার’ আস্তানা ভেঙে দিয়েছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার বিকেলে এসব অস্থায়ী ঝুপড়ি ঘর (আস্তানা) ভেঙে দেয়।
জেলা প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই গত সাতদিন ধরে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল দাড়িয়াপুর গ্রামে ফাইলা পাগলার মেলা শুরু হয়েছে। গত ৭৪ বছর ধরে চলা এ মেলায় দেশের বিভিন্ন জেলার প্রচুর লোকের সমাগম ঘটে। ২০০৩ সালে ১৭ জানুয়ারি এ মেলা চলাকালে পরপর দুটি বোমা বিস্ফোরণে মাজারের খাদেমসহ আটজন লোক নিহত ও ১৫ জন আহত হন। বোমা হামলার পর কয়েক বছর মেলায় লোকের সমাগম কমে গেলেও এখন আগের মতোই মেলা চলছে।
পুলিশ জানায়, গত সাতদিন ধরে মেলা চললেও ১৫ দিন আগে থেকেই মাজারের চারপাশে কমপক্ষে তিন হাজার দোকানপাট বসেছে। এছাড়াও বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রতিদিন বিভিন্ন ভক্ত আশেকান ওই মেলায় মানতের মোরগ, মুরগী ও খাসি নিয়ে আসছে।
সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ শাহিনুর রহমান বলেন, মেলা প্রাঙ্গণ থেকে ২০০গজ পূর্বে ৫০-৬০টি ছাপরা ঘর করে সেখানে গাঁজা খাওয়া ও বিক্রি চলছিল। গোপন সংবাদ পেয়ে গতকাল শুক্রবার বিকেলে অভিযান চালিয়ে গাঁজা খাওয়ার ওইসব ঘর ভেঙে দেওয়া হয়েছে।
ওসি আরও বলেন, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখনো মেলার কোন অনুমতি দেওয়া হয়নি। আগামীকালের মধ্যে মেলার অনুমতি না পাওয়া গেলে মেলা বন্ধ করে দেওয়া হবে।
ফাইলা পাগলার মেলার পরিচালনা কমিটির সভাপতি উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল শামীম  বলেন, মেলায় কোন অসামাজিক কার্যকলাপ চলতে দেওয়া হবে না। মেলার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে  পুলিশের ভূমিকা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। মেলার অনুমতির জন্য কয়েক দিন আগেই জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন করা হয়েছে। আগামীকালের  মধ্যেই মেলার অনুমতি পাবো বলে আশা করছি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840