সংবাদ শিরোনাম:
ধনবাড়ীতে প্রাইভেটকার চাপায় নিহত ১ আহত ৪ ভূঞাপুরে ৩৭টি পূজা মন্ডপে পৌর মেয়রের আর্থিক অনুদান টাঙ্গাইল শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলমগীর সম্পাদক রৌফ সাফ জয়ী কৃষ্ণা রানী সরকার ও কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটনকে সংবর্ধনা দিয়েছে টাঙ্গাইল জেলা ক্রীড়া সংস্থা ভাসানীর মাজারে ন্যাপ ভাসানীর পুষ্পস্তবক অর্পণ গোপালপুরে কৃষ্ণাকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সংবর্ধনা নাগরপুরে এবারের দুর্গোৎসব হবে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় বজ্রপাত প্রতিরোধে বাতিঘর আদর্শ পাঠাগারের উদ্যোগে তালবীজ বপন বিএনপির মিথ্যাচার করে দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করছে -কৃষিমন্ত্রী হিফজুল কোরআন প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান অর্জনকারী তাকরীমকে সংবর্ধনা
ধনবাড়ী বাকপ্রতিবন্ধী বিধবা নারী ধর্ষণের স্বীকার

ধনবাড়ী বাকপ্রতিবন্ধী বিধবা নারী ধর্ষণের স্বীকার

প্রতিদিন প্রতিবেদক ধনবাড়ী : ধনবাড়ী উপজেলার কদমতলী গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য হযরত আলীর বখাটে ছেলে উপজেলার ধোপাখালী বাজারে ফার্মেসির মালিক পল্লী চিকিৎসক মিনহাজ উদ্দিনর মিনু চিকিৎসার প্রলোভন দেখিয়ে তার দোকানের ভিতরে নিয়ে স্থানীয় হাজরাবাড়ী গ্রামের এক বাকপ্রতিবন্ধী বিধবা নারী (৩৫) কে ধর্ষণ করে।

মঙ্গলবার রাতে ওই নারীর ভাসুর বাদি হয়ে মিনহাজ উদ্দিন মিনুকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

উপজেলার ধোপাখালী বাজারে এ ঘটনা ঘটে। পরে বুধবার ওই নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

মামলার বাদী আজমত আলী জানান, গত ২১ জুন শুক্রবার দুপুরে বৃষ্টির সময় ধোপাখালী বাজারে গিয়েছিল তার মৃত ছোট ভাইয়ের বিধবা স্ত্রী। তাকে চিকিৎসার লোভ দেখিয়ে দোকানে নিয়ে মিনু ওই বাক প্রতিবন্ধী নারীকে ধর্ষণ করে।

এ ঘটনা বাড়িতে গিয়ে অন্যদের বুঝাতে চেষ্টা করে সে। সবাই বিষয়টি বুঝতে পারে। এলাকায় বিষয়টি জানাজানিও হয়ে যায়।

এক পর্যায়ে মিনুর বিরুদ্ধে স্থানীয় ধোপাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আকবর হোসেন ও ইউপি সদস্য নারায়ন, স্থানীয় আ’লীগ নেতা আ: মান্নান, রফিক সহ মাতাব্বরদের কাছে অভিযোগ করে বিচার প্রার্থী হয় দরিদ্র ও অসহায় ওই নারীর পরিবার।

গত সোমবার (২৪ জুন) বিকেলে ধোপাখালী ইউনিয়ন পরিষদে এ নিয়ে শালিসী বোর্ড গঠিত হয়। ধর্ষিতার পক্ষের তিন জন, ধর্ষকের পক্ষের তিন জন ও ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষের তিন জন ইউপি সদস্য নিয়ে গঠিত ওই বোর্ড দর কষাকষিতে শেষ পর্যন্ত মীমাংসায় আসতে পারেনি।

অবশেষে মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফা সিদ্দিকাকে বিষয়টি অবহিত করে বিধবার পরিবার। তিনি থানায় মামলা করার পরামর্শ দেন।

ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবর রহমান জানান, মামলার একমাত্র আসামী মিনহাজ উদ্দিন মিনুকে গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। বুধবার ওই নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে এবং ২২ ধারার জবানবন্দির জন্য আদালতে পাঠানো হয়।

ধোপাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আকবর হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, মিনু ডাক্তারের সাথে যে ঘটনা ঘটছে এইটা কোন ঘটনাই না। তার ধোপাখালী ইউনিয়ন পরিষদে সালিশ বৈঠকে আপোষ মীমাংসার কথা জানতে চাইলে তিনি বলেন এটি মীমাংসার জন্য স্থানীয় নারায়ন মেম্বার আর আমি সহ অনেকেই বসেছিলাম কিন্তু প্রতিবন্ধীর পরিবার মীমাংসা হয়নি।

অবশেষে মঙ্গলবার (২৫ জুন) দুপুরে ধনবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফা সিদ্দিকাকে বিষয়টি অবহিত করে ধর্ষিতার পরিবার। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বড় বিলম্ব হয়ে গেছে জানিয়ে থানায় অভিযোগের প্রয়োজনীয়তার কথা উল্লেখ করেন। পরে রাতেই ধনবাড়ী থানায় ধর্ষিতার ভাসুর আজমত আলী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840