সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইলে এবার নির্মাণ হবে দৃষ্টিনন্দন ২৬১ গম্বুজ মসজিদ মির্জাপুরে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রার্থীতা ঘোষণা করলেন ডা. শাওন মির্জাপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে হাসপাতাল মালিকের কারাদন্ড ও জরিমানা কালিহাতীতে স্কুল ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বা, হত্যার হুমকি কালিহাতীতে বাসচাপায় দুই এনজিও কর্মী নিহত আ’লীগকে উৎখাতের হুমকির প্রতিবাদে মাঠে নামলেন লতিফ সিদ্দিকী টাঙ্গাইলে যমুনা নদীতে দুই দিনব্যাপী নৌকা বাইচ শুরু, অর্ধলাখ মানুষের ঢল সখীপুরে বিদ্যালয় পরিদর্শনে গিয়ে ক্লাশ নিলেন ইউএনও ফারজানা আলম মধুপুরে বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত  ধনবাড়ীতে ভারত বনাম টাঙ্গাইল ফুটবল একাদশের টুর্ণামেন্ট অনুষ্ঠিত
বাসাইলে যৌতুকের জন্য নববধূকে বিড়ির আগুনের ছ্যাকা

বাসাইলে যৌতুকের জন্য নববধূকে বিড়ির আগুনের ছ্যাকা

প্রতিদিন প্রতিবেদক বাসাইল : বাসাইলে পাশন্ড স্বামী সজীব মিয়া যৌতুক না পেয়ে নববধূকে বিড়ির আগুনের ছ্যাকা সহ নানা শারীরিক নির্যাতন করেছে।

সজীব বাসাইল উপজেলার কাঞ্চনপুর ইউনিয়নের আদাজান গ্রামের আজিজুল মিয়ার ছেলে। নববধূূ টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়নের যুগনী গ্রামের আবুল হোসেনের কন্যা।

নববধূ বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের তৃতীয় তলার সাত নং ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছে।

এ ঘটনায় নববধূর পিতা বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নববধূ জানান, তাদের বিয়ে হয়েছে একমাসও হয়নি (২০/২২দিন)। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই তার স্বামী টাকা ও বিয়েতে দেয়া এক ভরি সোনার গহনার জন্য চাপ সৃষ্টি করে আসছিল।

নেশার টাকা ও গহনা না দেয়ায় প্রায় প্রতিদিন তাকে মারধর করত। শ্বশুর বাড়ির লোকজন জেনেও কিছু বলতো না। মঙ্গলবার রাতে নেশার টাকা না পেয়ে নববধূর সারা শরীরে বিড়ির ছ্যাকা দিয়ে ঝলসে দেয় সজীব।

পরে নববধূর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এসে তাকে উদ্ধার করে ও তার পরিবারকে মোবাইল ফোনের মাধ্যামে খবর দেয়।

পরে পরিনবারের লোকজন গিয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে বাসাইল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলার বাদী নববধূর মাতা ও পিতা আবুল হোসেন জানান, প্রস্তাকের মাধ্যমে মেয়ে বিয়ে দিয়ে ছিলাম। কিন্তু স্বামী নেশাগ্রস্থ ছিল সেটা মেয়ের শ্বশুড়বাড়ীর লোকজন আমাদের জানায়নি।

বিয়ের পর জানতে পারি ছেলে কোন কাজ কর্ম না করে শুধু নেশা খায়। বিয়ের দু’দিন পর থেকেই আমার মেয়েকে যৌতুকের টাকার জন্য নানা নির্যাতনের মাধ্যমে চাপ সৃষ্টি করে আসছে।

মেয়ে তার স্বামীর নির্যাতনের কথা আমাদের জানালে আমরা ছেলের অভিভাবকদের জানাই কিন্তু এতে কোন কাজ হয়নি। তা ছাড়া আমরা অসহায় দরিদ্র পরিবার। কিভাবে যৌতুকের টাকা দিব।

আমার মেয়ের নির্যাতনের সুষ্ঠ বিচার চাই।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840