কালিহাতীর হানিফের নেতৃত্বে জমজমাট মাদক ব্যবসা

কালিহাতীর হানিফের নেতৃত্বে জমজমাট মাদক ব্যবসা

প্রতিদিন প্রতিবেদক কালিহাতী : কালিহাতী উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের কদমতলি গ্রামের মৃত হোসেন মুন্সির ছেলে মাদক সম্রাট হানিফ দীর্ঘ দিন যাবত এলাকায় মাদক ব্যবসায় করে আসছে এলাকার ছাত্র ও যুব সমাজ নিয়ে একটি সিনডিকেট গড়ে তুলেছে।

এলাকায় ত্রাসের সৃষ্টি হওয়া একই গ্রামের শিক্ষক মাসুদ ভূইয়া, মিনহাজ তালুকদার ও ইব্রাহিম এর  নেতৃত্বে প্রতিরোধ কমিটি গঠন করা হয়। প্রতিরোধ কমিটি গতকাল ইউপি চেয়ারম্যান কে জানালে মাদক সম্রাট হানিফ কে গ্রাম পুলিশ দিয়ে ইউনিয়ন পরিষদে ডেকে এনে সত্যতার প্রমাণ পান।

কিন্তু পরক্ষণেই ছেড়ে দেন। ইউপি চেয়ারম্যান ছেড়ে দেওয়া পরই বেপরোয়া হয়ে আরো ব্যবসা চালাতে থাকেন এবং গ্রামের মাদক প্রতিরোধ কমিটি কে দেখে নেওয়া হুমকি দেন। মাসুদ ভূইয়া, মিনহাজ তালুকদার  ও ইব্রাহীম সহ আরো অনেক কে প্রাণ নাশের হুমকি দেন। এলাকায় আতংক বিরাজ করছে। যে কোন সময় সংঘর্ষের আংশঙ্কা রয়েছে।

হানিফের সঙ্গে নারান্দিয়া ইউপি কদমতলী গ্রামের মৃত আয়জ উদ্দিনের ছেলে মুন্তাজুর (২৫), মৃত আব্বাস আলীর ছেলে শাকিল (২১), জোয়াদ আলীর ছেলে রুবেল (২২), সুধাংশ বর্মনের ছেলে শীতল বর্ম (২৫) সহ এলাকার ছাত্র ও যুবকরা জড়িত রয়েছে।

শিক্ষক মাসুদ ভূইয়া জানান ও মিনহাজ তালুকদার জানান, এলাকায় দীর্ঘদিন যাবত মাদক ব্যবসায়ী হানিফ ব্যবসা চালিয়ে এলাকায় ছাত্র ও যুবকদের নেশাগ্রস্ত করিয়ে তাদের জীবন যাপন কে নষ্ট করে হুমকি মুখে ঠেলে দিচ্ছে। এ ব্যাপারে সাংবাদিক ও প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

মাদক ব্যবসায়ী হানিফ জানান, আমি পূর্বে মাদক ব্যবসা ও সেবন করতাম, এখন করি না। চেয়ারম্যান আমাকে ভালো হওয়ার সুযোগ দিয়ে ছেড়ে দিয়েছে।

নারান্দিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শুকুর মাহমুদ জানান, বিষয়টি অবগত হওয়ার পরে আমি মাদক সম্রাট হানিফ কে গ্রাম পুলিশ দিয়ে ডেকে নিয়ে আসি পরক্ষণেই যারা আমাকে অভিযোগ করেন, তারাই ছেড়ে দেওয়ার জন্য সুপারিশ করেন।

কালিহাতী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার ঠান্ডু জানান, বিষয়টি আমাকে অবগত করার পরই আমি পুলিশ প্রশাসন কে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য বলেছি।

এছাড়াও (২৯ জুন) সোমবার কালিহাতী উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের ৩ টি গ্রামে ১৩ দিনে ৬ টি স্থানে দুর্ধর্ষ ও ছিনতাই হওয়ায় এলাকায় আতংক বিরাজ করছে। দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী এলাকাবাসীর।

জানা যায়, ২৯ জুন সোমবার ভোররাতে উপজেলার বাঁশজানা গ্রামের সাদেক আলী তালুকদারের স্ত্রীর কান থেকে সোনার দুল ছিড়ে দৌঁড়ে পালিয়ে যায় এক চোর। ওই মহিলার কানে ৬ টি সেলাাই দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া লুহুরিয়া গ্রামের এক বাড়িতে চুরি হয়েছে বলে জানা গেছে। ইউনিয়নের নগরাবাড়ী গ্রামের সুশীল মোদকের বাড়িতে রাতে চুরির প্রস্তুতি নিচ্ছিল চোরের দল। বাড়ির লোকজন টের পেলে চোররা পালিয়ে যায়।

২৮ জুন রবিবার দিবাগত রাতে নগরবাড়ী গ্রামের গৌরাঙ্গ ভৌমিকের ৩ টি গরু চুরি হয়। গরুগুলোর দাম ১ লাখ ৫০ হাজার টাকার উপরে। গৌতম ভৌমিক বলেন সম্প্রতি আমি গার্মেন্টেসের চাকরি ছেড়ে দিয়ে বাড়িতে এসে গরু পালন শুরু করছি।

২৪ জুন বুধবার রাত সাড়ে ৯ টায় নারান্দিয়া বাসস্ট্যান্ডের বিকাশ ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীল আলম দোকান থেকে বাড়ি ফিরতেছিলেন। বাড়ির নিকটে আসলে হাতে থাকা টাকার ব্যাগ ছিনতাই করে দৌঁড়ে পালিয়ে যায় এক ছিনতাইকারী।এ কারনে ব্যবসায়ীদের মাঝেও আতংক বিরাজ করছে।

২৩ জুন মঙ্গলবার রাতে নারান্দিয়া গ্রামের সিদ্দিকুর রহমান চৌধুরীর বাড়ি থেকে ২ লাখ ৮২ হাজার টাকা ও ৬ ভরি সোনার অলংকার নিয়ে গেছে। একই রাতে পাশের বাড়ির কাজী রফিকুল ইসলামের বাড়ি থেকে ১ লাখ ৪৩ হাজার টাকা ও ১ ভরি স্বর্ণ চুরি হয়।

উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নের নগরবাড়ী গ্রামের জয়দেব মোদকের বাড়িতে ১৬ জুন মঙ্গলবার রাতে টিন কেটে ঘরে ঢুকে আলমারি ভেঙে নগদ ২৫ হাজার টাকা ও ১০ ভরি সোনার অলংকার নিয়ে যায়।

সম্প্রতি অনেকগুলো চুরি ও ছিনতাই ঘটনা এলাকায় আতংক বিরাজ করায় চুরি রোধে নারান্দিয়ার নির্জন চন্দ্র ভৌমিকের বাড়িতে এলাকাবাসী ও পুলিশ বৈঠক করেন। বৈঠক থেকে সন্দেহভাজন কয়েকজনকে ধরে ইউনিয়ন পরিষদে আটকে রাখা হয়। পরে ইউপি চেয়ারম্যান শুকুর মামুদ অভিভাবকদের জিম্বায় তাদের ছেড়ে দেন।

এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীরা বলেন আমরা রাতে শান্তিতে ঘুমাতে পারছি না।

কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাসান আল মামুন জানান, পুলিশ প্রশাসন বর্তমানে করোনা প্রতিরোধে ব্যস্ত। এই সুযোগে চুরি ছিনতাই শুরু করেছে একটি চক্র। একই এলাকায় একাধিক ঘটনা অত্যন্ত উদ্বেগজনক। আমরা অপরাধীদের ধরার চেষ্টা করছি।

খবরটি শেয়ার করুন..

2 responses to “কালিহাতীর হানিফের নেতৃত্বে জমজমাট মাদক ব্যবসা”

  1. […] কালিহাতীরhttp://3.0.107.7/?p=28114 বল্লাতে বিভিন্ন মাদকদ্রব্য বিক্রি করে উর্তী বয়সের ছেলেদের বিপথগামী করে ফেলে এবং মাদকাসক্ত তরুণেরা ইফটিজিং, ছিনতাই সহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ে যার ফলে এলাকাবাসী তাদেরকে স্বপরিবারে এলাকা থেকে বিতারিত করে। […]

  2. […] কালিহাতীরhttp://3.0.107.7/?p=28114 বল্লাতে বিভিন্ন মাদকদ্রব্য বিক্রি করে উর্তী বয়সের ছেলেদের বিপথগামী করে ফেলে এবং মাদকাসক্ত তরুণেরা ইফটিজিং, ছিনতাই সহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ে যার ফলে এলাকাবাসী তাদেরকে স্বপরিবারে এলাকা থেকে বিতারিত করে। […]




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840