ঘাটাইলে ছোট ভাইয়ের হাঁটার রাস্তা বন্ধ করে ঘর বানালেন বড় ভাই

ঘাটাইলে ছোট ভাইয়ের হাঁটার রাস্তা বন্ধ করে ঘর বানালেন বড় ভাই

প্রতিদিন প্রতিবেদকঃ আপন ছোট ভাইদের বাড়িতে চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে ঘর দেয়ার অভিযোগ উঠেছে মনির সিদ্দিকী নামের এক বড় ভাই এর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার দিঘলকান্দি ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের কালিয়া গ্রামে। দফায় দফায় বিষয়টি নিয়ে পারিবারিকভাবে মীমাংসা করার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছেন ছোট ভাইয়েরা। মীমাংসার চেষ্টা করায় বড় ভাইয়ের হুমকির শিকারও হয়েছেন ছোট ভাই ও বোনেরা। মৌখিক জমি বন্টন ও সামনের অংশ বড় ভাই নেয়ার জোরে এমন ঘটনাটি ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ করছেন পরিবারের সদস্যরাসহ প্রতিবেশীরা।

জানা যায়, ঘাটাইল উপজেলার দিঘলকান্দি ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের কালিয়া গ্রামের আলী জুলফিকার মিয়ার তিন ছেলে ও তিন মেয়ে। এর মধ্যে বড় ছেলে মনির সিদ্দিকী, মেজ ছেলে সৌদী প্রবাসী মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী জোসেব আর ছোট ছেলে ফিরোজ সিদ্দিকী। পৈত্রিক সূত্রে আর মৌখিক মালিকানায় জনপ্রতি বাড়ির জমি পেয়েছেন ৫ শতাংশ। এর মধ্যে বড় ভাই মনির সিদ্দিকী সামনের অংশ থেকে নিয়েছেন ৫ শতাংশ। মাঝের অংশ থেকে ৫ শতাংশ পেয়েছেন মেজ ছেলে সৌদী প্রবাসী মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী জোসেব আর ছোট ছেলে ফিরোজ সিদ্দিকী পেয়েছেন শেষ অংশের ৫ শতাংশ।

সৌদী প্রবাসী মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী জোসেব বলেন, মৌখিকভাবে আমরা বাড়ির জমি থেকে তিন ভাই পাঁচ শতাংশ করে জমি পেয়েছি। আমার অংশ মাঝখানে। জমি ভাগের সময় ৬ ফুট রাস্তা রাখার সিদ্ধান্ত হয়। রাস্তাটি দিয়ে সকলে চলাচল করলেও নির্মাণ কাজের দায়িত্ব নিয়েছিলাম আমি। আমরা ছোট দুইভাই কর্মস্থলে থাকার সুযোগ নিয়ে গত এক মাস আগে আমাদের বড়ভাই মনির সিদ্দিকী রাস্তার অংশটুকু বন্ধ করে ঘরের অংশ বৃদ্ধি করেছেন। এ কারণে সৌদী থেকে আমি মোবাইলে বড়ভাইয়ের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করাসহ বাড়িটি তার বলে দাবি করেছেন। রাস্তাটি বন্ধ করায় আমাদের চলাচলের চরম সমস্যা দেখা দিয়েছে।

সবাই একমত হয়ে রাস্তার জন্য ছাড়া জমির অংশে কেন অবৈধভাবে ঘরের অংশ বৃদ্ধি করা হলো এর বিচার দাবি করেছেনসৌদী প্রবাসী মোস্তাফিজুর রহমান সিদ্দিকী জোসেব। রাস্তাটি উদ্ধারে ইউনিয়ন পরিষদসহ সকল কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ দেয়া হবে। চলাচলের রাস্তাটি উদ্ধারে স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনাও করেছেন তিনি।

ছোট বোন নাজু বলেন, রাস্তার সমস্যাটি সমাধানে বাড়িতে আসছি বলে আমার বড়ভাই মনির সিদ্দিকী আমাকে সংসার ছাড়া করার হুমকি দিয়েছেন। আমরা পরিবারের শান্তি চাই। রাস্তা ছেড়ে ঘর করার যে সিদ্ধান্ত ছিল, সেটি বহাল রাখার দাবি জানিয়েছেন তিনি।
পরিবারের অভিভাবক মাজহারুল হক রানা সিদ্দিকী বলেন, সম্পর্কে আমি ওদের চাচা। পাশের প্লটটিই আমাদের। রাস্তাটি সচল রাখার জন্য আমি বাঁধা দিয়েছিলাম। তবে মনির নানা অজুহাত দেখিয়ে ও কথা অমান্য করে রাস্তাটি বন্ধ করেছে।

অভিযুক্ত মনির সিদ্দিকী বলেন, আমি রাস্তা জমি দখল করিনি। আমার ভাগে পাওয়া পৈত্রিক সম্পতির অংশের টুকুতে ঘর বড় করেছি। এরপরও রাস্তা জন্য দুই হাত পরিমাণ ছেড়ে রেখেছি।

দিঘলকান্দি ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রহিম মিয়া বলেন, রাস্তা বন্ধ করে ঘর নির্মাণের কোন অভিযোগ পায়নি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে দিঘলকান্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রেজাউল করিম মটু জানান, রাস্তা বন্ধ করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ পেয়েছি। সরেজমিন দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা হবে।

 

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840