টাঙ্গাইলে পাকিস্তানি কিশোরী ধর্ষণ চার দিনের রিমান্ডে

টাঙ্গাইলে পাকিস্তানি কিশোরী ধর্ষণ চার দিনের রিমান্ডে

প্রতিদিন প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলে বহুল আলোচিত পাকিস্তানি কিশোরীকে ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী আল আমীন ও তার ভাই সুমনের ৪দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

বুধবার দুপুরে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট গোপালপুর আমলী আদালতের বিচারক রুপম কুমার দাস এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এদিকে এর আগে গ্রেফতার হওয়া আল আমিনের মা জামিন আবেদন করলে আদালত জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন। ওই কিশোরীর মা আসামিদেও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন।

এর পূর্বে মঙ্গলবার কুড়িগ্রাম থেকে আল আমিনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব সদস্যরা। এরপর বুধবার ওই আসামীকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কোর্ট হাজতে প্রেরণ করেন।

মঙ্গলবার বিকেলে ওই কিশোরীর দোভাষির মাধ্যমে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট নওরিন মাহবুব এর কাছে ২২ ধারার জবানবন্দী প্রদান করেছেন। বর্তমানে ওই কিশোরী টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পুলিশী হেফাজতে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের তত্তাবধায়ক ডাঃ নারায়ণ চন্দ্র সাহা জানান, আগামীকাল বৃহস্পতিবার ডাক্তারী পরীক্ষার ফলাফল জানা যাবে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোপালপুর থানার এসআই সাদেকুর রহমান জানান, আদালতে আসামী আল আমিন ও তার ভাইয়ের ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। পওে আদালত তাদের ৪দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, পাকিস্থান থেকে মায়ের সাথে গোপালপুরে বাবার বাড়িতে বেড়াতে এসে চাচাতো ভাই আল আমীন কর্তৃক অপহরণের পর একাধিকবার ধর্ষনের শিকার হয় ওই কিশোরী। পরে তার মা বাদী হয়ে তিন জনকে আসামী করে ১৭ এপ্রিল মামলা দায়ের করে।

এরপর পুলিশ আল আমিনের মাকে গ্রেপ্তার করে। পরদিন তার দেয়া তথ্যে জামালপুরের সরিষাবাড়ির মহিষাকান্দি গ্রাম থেকে কিশোরীকে উদ্ধার কওে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করে পুলিশ।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840