টাঙ্গাইলে মোবাইল কোর্টের অভিযানে জরিমানা আদায়

টাঙ্গাইলে মোবাইল কোর্টের অভিযানে জরিমানা আদায়

প্রতিদিন প্রতিবেদক : করোনা ভাইরাস পরিস্থিতির সুযোগ নিয়ে টাঙ্গাইল শহরের বিভিন্ন বাজারে অতিরিক্ত মূল্যে পেয়াজ, চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যসামগ্রী বিক্রি করার অভিযোগ শুক্রবার (২০ মার্চ) সকালে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মোঃ শহীদুল ইসলাম-এর নির্দেশে তাৎক্ষণিক মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়।

এসময় দ্রব্যের মূল্য বেশি রাখা ও কৃত্রিম সংকট তৈরির অভিযোগে বিভিন্ন ধরনের ১৩ অসাধু ব্যবসায়ী কাছ থেকেে এক লাখ ষাট হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

শহরের পার্ক বাজারে র‌্যাব ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণের সহযোগিতায় যৌথভাবে এ অভিযান পরিচালনা করেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আতিকুল ইসলাম ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুখময় সরকার।

ন্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে নয়জন পিয়াজ ব্যবসায়ী ও একজন চাল ব্যবসায়ী। এরা হলেন- চাঁন মিয়া, আক্তার হোসেন, সোহেল মিয়া, গোবিন্দ সরকার, সবুজ মিয়া, হাসু মিয়া, আকমল হোসেন, জোয়াহের আলী, সেকান্দার হোসেন, সিদ্দিকুর রহমান, মোসলেম উদ্দিন, জাহাঙ্গীর হোসেন এবং আমিনুল ইসলাম।

এদের মধ্যে নয়জনকে ১০ হাজার টাকা করে, তিনজনকে ৫০ হাজার ও একজনকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সুখময় সরকার জানান, জনসাধারণের অভিযোগের প্রেক্ষিতে বাজারে গিয়ে দ্রব্যমূল্য বেশি রাখার সত্যতা পাওয়া যায়। পরে ১৩ জন ব্যবসায়ীকে অতিরিক্ত দামে পেয়াজ বিক্রির অপরাধে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৪০ ধারা অনুযায়ী এক আড়তদারকে পঞ্চাশ হাজার টাকা এবং অতিরিক্ত দামে চাল বিক্রির অপরাধে আরেক আড়তদারকে বিশ হাজার টাকা এবং ধোরের বাজারে এক ব্যবসায়ীকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়।

এছাড়াও হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় দুপুরে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়নে সিঙ্গাপুর ফেরত প্রবাসী রবি চাঁনকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তিনি শশুড়বাড়ি বেড়াচ্ছিলেন এবং সকলের সাথে ওঠাবসা মেলামেশা করছিলেন। দন্ডবিধি ১৮৬০ এর ২৭১ ধারা অনুযায়ী সরকারী আদেশ অমান্য করায় এ শাস্তি প্রদান করা হয়।

এছাড়াও পৌর এলাকার দিঘুলিয়া এলাকায় আমেরিকা প্রবাসী দম্পতি হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় তাদের সতর্ক করে পুনরায় কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশ প্রদান করা হয়।মোবাইল কোর্ট পরিচালনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করেন র‌্যাব এবং জেলা পুলিশের সদস্যগণ।

বাজারে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের কোন ঘাটতি নেই। কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে মূল্য বৃদ্ধির বিরুদ্ধে বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশক্রমে এ ধরণের মোবাইল কোর্ট পরিচালনা অব্যাহত থাকবে বলে জানান মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকারী।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840