টাঙ্গাইলে সাংবাদিক পরিবারসহ নতুন পাঁচজন করোনায় আক্রান্ত

টাঙ্গাইলে সাংবাদিক পরিবারসহ নতুন পাঁচজন করোনায় আক্রান্ত

প্রতিদিন প্রতিবেদক : সময় টিভির টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি কাদির তালুকদার ও তার বাবা ফজলুল হক তালুকদারসহ নতুন করে ৫জন করোনায়া আক্রান্ত হয়েছেন।

এর আগে সময় টিভির সাংবাদিকের স্ত্রী শাহিদা বেগমও করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে সদর ৩, মির্জাপুর ১ ও বাসাইল ১ জন রয়েছে।

নতুন আক্রান্তদের মধ্যে টাঙ্গাইল সদর উপজেলায় তিনজন আর মির্জাপুর ও বাসাইলে একজন করে রয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪৪৬ জন।

বুধবার (২৪ জুন) তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াহীদুজ্জামান।

তিনি বলেন, গত ১৬ জুন পাঠানো নমুনা থেকে বুধবার সকালে নতুন করে পাঁচজনের করোনা পজিটিভ হওয়ার ফলাফল আসে। এখন ঢাকায় ফলাফল আটকে আছে ১০৬০টি।

এছাড়াও বুধবারের ৮০টিসহ জেলায় এ পর্যন্ত নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ৭৮৩১টি। সুস্থ হয়েছেন ১৫৫জন। মৃত্যুবরণ করেছেন ১১জন। হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৩৯ জন। মোট কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন ১১৯০৮জন।

করোনায় আক্রান্ত সময় টিভির টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি কাদির তালুকদার মোবাইল ফোনে জানান, গত ৭ জুন গাইনী সমস্যা জনিত কারণে তার স্ত্রী শাহিদা বেগমকে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। সেখানে অপারেশন করার প্রয়োজনে চিকিৎসক তার করোনা পরীক্ষা করার তাগিদ দেন।

এ কারণে তার নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় পাঠানো হয়। তবে করোনার নমুনা ফলাফল না আসায় তার স্ত্রীর অপারেশন বন্ধ রেখে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। এরপর ১৪ জুন তার স্ত্রীর নমুনার ফলাফল আসে পজিটিভ।

নমুনার ফলাফলের পূবের্ পরিবারের সবাই তার স্ত্রী সংস্পর্শে থাকায় ১৫জুন বাবা, মা, ছেলে, মেয়ে ও তার নমুনা সংগ্রহ করেন স্বাস্থ্য বিভাগ। বুধবার (২৪জুন) নমুনা সংগ্রহের ৯দিন পর তাদের ফলাফলে সে ও তার বাবার করোনা শনাক্ত পজিটিভ হয়েছে।

এছাড়া তার ২০ বছরের ছেলে সিয়াম ও ৭ বছরের মেয়ে কথাসহ তার মায়ের নমুনায় করোনা শনাক্ত হয়নি।

টাঙ্গাইলের সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ওয়াহীদুজ্জামান জানান, ঢাকায় নমুনা পরীক্ষার প্রচুর চাপ থাকার কারণে ফলাফল আসতে একটু সময় লাগছে। স্যাম্পল দেয়ার পর আর ফলাফল আসার আগ পর্যন্ত অবশ্যয় প্রতিটি ব্যক্তিকে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

বুধবার (২৪ জুন) তারিখ পর্যন্ত জেলার মোট করোনা আক্রান্ত সংখ্যা ৪৪৬ জন। এর মধ্যে মির্জাপুর ১২৫, সদর ৭৩, নাগরপুর ৩৬, কালিহাতী ৩৫, মধুপুর ৩১, দেলদুয়ার ২৯, ধনবাড়ী ২৩, ঘাটাইল ২১, গোপালপুর ২৫, ভূঞাপুর ২২, সখিপুর ১৬ এবং বাসাইল ১০ জন আক্রান্ত।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840