সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইল থেকে বাস-ট্রাক ছাড়েনি, যাত্রীদের দুর্ভোগ

টাঙ্গাইল থেকে বাস-ট্রাক ছাড়েনি, যাত্রীদের দুর্ভোগ

প্রতিদিন প্রতিবেদক : ডিজেল ও কেরোসিনের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে শুক্রবার (৫ অক্টোবর) সকাল থেকে বাস ও ট্রাকের ধর্মঘট পালন করছে পরিবহন শ্রমিকরা। এর ফলে টাঙ্গাইল বাসস্ট্যান্ড থেকে বাস ছেড়ে যায়নি। এতে দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

সকাল থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে বাস ও ট্রাক চোখে পড়েনি।

সকাল থেকে সরেজমিন ঘুরে দেখা যায়, টাঙ্গাইলের নতুন বাসস্ট্যান্ডে সব বাস সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে রয়েছে। ঢাকাগামী যাত্রী তিশা বলেন, ঢাকায় জরুরি প্রয়োজন। দেড় ঘণ্টা ধরে দাঁড়িয়ে থেকে বাস না পেয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় ঢাকা যাচ্ছেন। ভাড়া বাসের তিনগুণ। আর তিনি অটোরিকশায় ঢাকা পর্যন্ত যেতে পারবেন কিনা তা নিয়েও শঙ্কায় আছেন।

মহাসড়কের রাবনা এলাকায় গিয়ে বাস চোখে পড়েনি। কয়েকজন যাত্রী বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন। তাদের মধ্যে বিপ্লব বলেন, ‘সকালে অফিস। সিরাজগঞ্জ থেকে ছোট যানবাহনে করে এ পর্যন্ত এসেছি। কোনো যানবাহন পাচ্ছি না। সব মিলে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে।’ শহরের পার্কবাজার এলাকায় অস্থায়ী ট্রাক স্ট্যান্ডেও একই অবস্থা।

স্থানীয় ব্যবসায়ী রকমান আলী বলেন, ‘সন্ধ্যায় টাঙ্গাইলৈ মালামাল নামানোর কথা ছিলো। কিন্তু ঢাকার মিরপুর এসে ট্রাক আটকা পড়েছে। শঙ্কায় রয়েছি, গাড়ি আসতে পারবে কি না। সব মিলে বিপাকে পড়েছি।’

জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির মহাসচিব গোলাম কিবরিয়া বড়মনি বলেন, ‘বাঁচার তাগিদে গণপরিবহন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছি। কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মতি অনুসারে জেলা ও আঞ্চলিক মালিক আর শ্রমিক ইউনিয়নের সমন্বয়ে সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য এ জেলার বাস, ট্রাক ও কাভার্ডভ্যানসহ সব ধরনের ডিজেলচালিত গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে।’

এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইয়াসির আরাফাত বলেন, সকাল থেকে ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক দিয়ে তেমন বাস ট্রাক চলেনি। তবে ভোরে দূরপাল্লার দু-একটি বাস ছিলো।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840