বাসাইলের নাগাসিমে একশ’ মেঘাওয়াট সৌরবিদ্যুত কেন্দ্র স্থাপনের অনুমোদন

বাসাইলের নাগাসিমে একশ’ মেঘাওয়াট সৌরবিদ্যুত কেন্দ্র স্থাপনের অনুমোদন

প্রতিদিন প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলায় কাশিল ইউনিয়নের নাকাসিম গ্রামে ১০০ মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন সৌরবিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের সরকারি অনুমোদন পাওয়া গেছে। ফলে এই এলাকা সম্পুর্ন বদলে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। এই বিদ্যুত কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে এলাকাবাসী অপেক্ষা করে আসছিল। অবশেষে প্রতিক্ষার প্রহর শেষ হয়েছে। এখন বাসাইলের মানুষ বিদ্যুত কেন্দ্র নিয়ে নতুন স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে। মন্ত্রীসভায় বৈঠকে এটি স্থাপনের প্রস্তাব অনুমোদিত হওয়ার খবর পৌছলে এলাকাবাসীর মধ্যে আনন্দের জোয়ার বইতে শুরু করেছে।

জানা গেছে, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে বুধবার (৬ ডিসেম্বর) দুপুরে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয়সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে দুইটি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের প্রস্তাব অনুমোদিত হয়। এর মধ্যে টাঙ্গাইলের বাসাইলে একটি ও কক্সবাজার সদরে একটি । এই বিদ্যুৎ কেন্দ্র দুটির ট্যারিফ অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান বৈঠক শেষে বুধবার দুপুরে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলার বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণের কাজ পেয়েছে যৌথভাবে রিনিউবেল এনার্জি ইউকে লিমিটেড, বাদল কনস্ট্রাকশন ও জি-টেক সলিউশন লিমিটেড কনসোর্টিয়াম। প্রতি কিলোওয়াট ঘণ্টা ১০ টাকা ৯৯ পয়সা হিসাবে সরকার তাদের আনুমানিক ৩ হাজার ৫৬১ কোটি ৬০ লাখ টাকা পরিশোধ করবে।

এ ব্যাপারে কাশিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ রমজান মিয়া বলেন, কাশিল ইউনিয়নের নাকাসিম গ্রামের সায়ের মৌজার এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রের অনুমোদন আমাদের জন্য অত্যন্ত আনন্দের। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রে স্থানীয় বেশ কিছু লোকের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে। এ ছাড়াও উপজেলার লোকজনের বিদ্যুৎ চাহিদা পূরণ ভুমিকা রাখবে বলে আমি আশাবাদী। এই বিদ্যুত কেন্দ্রটি স্থাপন হলে কালিশ ইউনিয়ন তথা সমগ্র বাসাইল উপজেলার উন্নয়ন সাধিত হবে।

স্থানীয়রা জানান, বাসাইলের কৃতি সন্তান ও বাদল কন্সট্রাকশনের সত্বাধিকারী মোঃ বাদল মিয়া দীর্ঘ দিনধরে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্যে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। কাশিল ইউনিয়নবাসীর ভাগ্যের চাকা ঘুরাতে বাদল মিয়া অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। অবশেষে তার পরিশ্রম আজ স্বার্থক হতে চলেছে।

কাশিল ইউনিয়নের সাধারন মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, বাদল মিয়ার একান্ত সহযোগীতায় টাঙ্গাইল-বাসাইল সড়কে কাশিল বটতলা এলাকায় ইতিমধ্যে একটি চায়না প্রজেক্টের কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে। এ প্রকল্পটি সম্পুর্ন হলে বেকারত্ব দুর হওয়ার পাশাপাশি পুরো এলাকা বদলে যাবে। এলাকাবাসী জানায়, এসব উন্নয়নমুলক কর্মকান্ড শুরু করতে সাধারন মানুষ বাদল মিয়াকে নানাভাবে সহযোগীতা করেছে। তবে সুযোগ সন্ধানী কিছূ মানুষ নানাভাবে মিথ্যা অপবাদ ও ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে বাঁধা সৃষ্টির চেষ্টা করলেও তা সফল হয়নি।

বাদল কনস্ট্রাকশনের স্বত্বাধিকারী মোঃ বাদল মিয়া জানান, ইতিমধ্যে প্রকল্পটি সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি ট্যারিফ অনুমোদন দিয়েছে। বিশ্বব্যাপি পরিবেশ রক্ষায় সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনে জোর দেয়া হচ্ছে। উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও জ্বালানি আমদানি কমাতে সরকারও এখাতে জোর দিয়েছে। যার গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হলো বাদল কনস্ট্রাকশনের। এই প্রকল্পে যারা যারা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে নানাভাবে সহযোগীতা করেছেন তাদেরকে বাদল কন্সট্রাকশনের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানান তিনি।

তিনি আরও জানান,তবে এখনও অনুমোদনের লিখিত কাগজ হাতে পাইনি। কাগজ হাতে পেলে বিস্তারিত বলবো। তবে এটা বলতে পারি, প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে, কাশিল তথা বাসাইল উপজেলায় অনেক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

 

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840