মির্জাপুরে ধান পুড়ানো ইটভাটা সড়ানোর নির্দেশ

মির্জাপুরে ধান পুড়ানো ইটভাটা সড়ানোর নির্দেশ

প্রতিদিন প্রতিবেদক মির্জাপুর : মির্জাপুরে আবাধি ফসলি জমির ধান পুড়ানো সেই এএনবি-২ ইটভাটা সড়িয়ে নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত।

একই সাথে আবাসিক এলাকায় অনুমোদনহীন ইটভাটা স্থাপনের অপরাধে মালিককে একলাখ টাকা জরিমানা করা হয়।

সোমবার দুপুরে ভ্রাম্যামান আদালতের বিচারক মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মঈনূল হক আগামী তিন মাসের মধ্যে ওই এলাকা থেকে ইটভাটা সড়িয়ে নেয়ার নির্দেশ দেন এবং জরিমানা আদায় করেন।   

ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) মো. মঈনুল হকের নেতৃত্বে টাঙ্গাইল জেলা দুর্নীতি দমন কমিশন ও টাঙ্গাইল জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের একটি দল যৌথভাবে এ অভিযান চালায়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশন টাঙ্গাইল জেলার উপ-পরিচালজক মো. মোস্তাফিজুর রহমান, কোর্ট পরিদর্শক মো. বুলু মিয়া, এসি মো. সিরাজুল হক, টাঙ্গাইল জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মুহাম্মেদ মুজাহিদুল ইসলাম, পরিদর্শক সজীব কুমার ঘোষ।

উপজেলার গোড়াই ইউনিয়নের সোহাগপাড়া গ্রামের আব্দুর রহিম ও তার আত্মীয় গাজীপুরের কড্ডা এলাকার রেজাউল করিম মিলে বহুরিয়া গ্রামের পূর্বপাড়ায় আবাদি জমি উপর এএনবি-২ নামে একটি ইটভাটা স্থাপন করেন।

ভাটার তিন দিকে আবাদী জমি ও একপাশে নদী ঘেরা ওই এলাকায় ৭/৮ একর আবাদী জমি ভাড়া নিয়ে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের অনুমোদন ছাড়া ভাটাটি চালু করেন তারা।

ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মঈনূল হক জানান, আবাসিক এলাকায় অনুমোদনবিহীন ইটভাটা স্থাপন করায় ওই আগামী তিন মাসের মধ্যে ইটভাটা সড়িয়ে নেয়ার নির্দেশ ও একলাখ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, মির্জাপুর উপজেলার বহুরিয়া ইউনিয়নের বহুরিয়া পূর্বপাড়া এলাকার এএনবি-২ ইটভাটার চিমনি থেকে বের হওয়া বিষাক্ত ধোঁয়ায় প্রায় ২০ একর জমির ধান নষ্ট হয়। এছাড়া  ভাটাসংলগ্ন এলাকায় গাছ থেকে ছোট ছোট আম ঝরে পড়ে। গত ২ মে টাঙ্গাইলের শীর্ষস্থানীয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল “টাঙ্গাইল প্রতিদিন” ‘মির্জাপুরে ইটভাটার আগুনে জমির ধান পুড়ানোর বিষয় সংবাদ প্রকাশিত হলে বিষয়টি প্রশাসনের নজরে আসে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840