সংবাদ শিরোনাম:
মধুপুরে বাসে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের দায়ে জরিমানা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে মাভাবিপ্রবি পরিবারের শ্রদ্ধা নিবেদন টাঙ্গাইলে আওয়ামীলীগের প্লাটিনাম জয়ন্তী উদযাপিত বাসাইলে বজ্রাঘাতে কৃষকের মৃত্যু অচিরেই দেখা যাবে বিএনপি খণ্ডবিখণ্ড হয়ে পড়েছে: সাবেক কৃষিমন্ত্রী টাঙ্গাইলে প্রাইভেটকার-মাহিন্দ্রার সংঘর্ষে নিহত ২ স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষার পাশাপাশি খেলাধুলার বিকল্প নেই: শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী টাঙ্গাইলে ২হাজার ৮২টি ঈদুল আজহার জামাতের মাঠ প্রস্তুত টাঙ্গাইলে গরুর হাটের নিরাপত্তা ও মহাসড়কের যানজট নিরসনে কাজ করছে RAB টাঙ্গাইলে ১০৮ বোতল বিদেশী মদসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক
মির্জাপুরে মাটি খেকোদের থাবায় হুমকিতে সেতু, নদীর পাড় ও আবাদী জমি

মির্জাপুরে মাটি খেকোদের থাবায় হুমকিতে সেতু, নদীর পাড় ও আবাদী জমি

প্রতিদিন প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বংশাই, লৌহজং নদীর অবকাঠামো ও ফসলী জমি ধ্বংস করে রাতের আধারে অবাধে মাটি চুরির হিড়িক পড়েছে। একটি প্রভাবশালী সিন্ডিকেট চক্রের ছত্রছায়ায় ভেকু দিয়ে নদীর পাড়, আবাদী জমির মাটি কেটে গ্রামীণ রাস্তার অবকাঠামো নষ্ট করে প্রতিদিন লাখ লাখ টাকার মাটি চুরি করলেও অজ্ঞাত কারণে প্রশাসন নীরব ভূমিকা পালন করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ বালু কাটার ফলে পৗরসভার কুমুরজানী এলাকার বীর মুক্তিযুদ্ধা একাব্বর হোসেন সেতু ও গোড়াই চানপুর ব্রিজ হুমকির মুখে পড়েছে।

জানা যায়, মির্জাপুর উপজেলার লতিফপুর ইউনিয়নের চাঁনপুর ব্রিজ সংলঘœ পশ্চিমপাশে ও মির্জাপুর পৌরসভার কুমুরজানী এলাকার বীর মুক্তিযুদ্ধা একাব্বর হোসেন সেতু সংলগ্ন বংশাই নদীরপার, পাতিলাপাড়া এলাকার বহুরিয়া লৌহজং নদীরপার ও বেলতৈল, কান্ঠালিয়া, তেলিপাড়া নদীরপার এলাকা থেকে ভেকু যন্ত্র দিয়ে শত শত ট্রাক মাটি লুট করা হচ্ছে। তিন ফসলী জমি ধ্বংস করে রাস্তা বানিয়ে ট্রাক দিয়ে প্রতিদিন মাটি তুলে নেয়ায় গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। ফসলি জমি গুলো উর্বরতা হারাচ্ছে। অপরদিকে নদীর পাড় থেকে অবাধে ফসলি জমির মাটা কাটায় বর্ষা মৌসুম এলে জমির জায়গা নদীর মধ্যে চলে যাবে বলে এলাকার জনপ্রতিনিধিরা অভিযোগ করেন।

বংশাই নদীরপার, পাতিলাপাড়া এলাকার বহুরিয়া লৌহজং নদীরপার, বেলতৈল, কান্ঠালিয়া, তেলিপাড়া নদীতে গিয়ে দেখা গেছে, একাধিক ভেকু মেশিন দিয়ে নদীর পাড় এলাকার ২০ থেকে ২৫ ফুট গভীর করে মাটি কেটে নিয়েছে। এতে শুধু নদীর অবকাঠামো, আবাদি জমি ও গ্রাামীণ রাস্তা-ঘাট ধ্বংস হচ্ছে, হুমকিরমূখে পড়েছে বীর মুক্তিযুদ্ধা একাব্বর হোসেন সেতু, চানপুর ব্রিজ বিভিন্ন রাস্তা-ঘাট। এছাড়া নদীর পাড় কেটে ফেলায় বর্ষা মৌসুম এলে নদী পাড়ের আবাদী জমি গুলো বালুর স্তর জমে যাবে। এতে করে ফসল ফলাতে পারবে না কৃষকরা। নদীর বালি পড়ে জমির উর্বরতা নষ্ট হবে।

আজগানা ইউনিয়নের চেয়ারম্যাসহ তার ভাই হাসেম সিকদার, গোড়াই ইউনিয়নের দেওহাটার ইলিয়াস, গোড়াই এলাকার নাজিম ও তালেব, ভাওড়া ইউনিয়নের সরিষাদাইড় এলাকার মোন্নাফ, ফতেপুর ইউনিয়নের স্থানীয় নেতারা, গুনোটিয়ার রাজিবসহ অনেকেই এই মাটি লুটের সঙ্গে সম্পৃক্ত বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন।

ভেকু মেশিন দিয়ে মাটিকাটার সময় বেলতৈল এলাকার মাটিকাটার সাথে সম্পৃক্ত ইউসুব বলেন, এই নদীর পারের মাটি চেয়ারম্যান কাদের কাক্কু নিজে তার ভাই হাসেম কাক্কুরে দিয়ে তাদের ভাটা এমবিএম সহ আরও অনেক জায়গায় বিক্রি করতেছে। আজগানা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাদের সিকদারের ভাই হাসেম সিকদার বলেন, এই মাটি আমার ভাইয়ের ঘোলাসহ বিভিন্ন জায়গায় যাচ্ছে।

আজগানা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাদের সিকদার বলেন, আমি মাটি ব্যবসার সাথে জড়িত না। আমার ভাই না থাক অন্য কোন ব্যক্তিও মাটি ব্যবসার সাথে জড়িত থাকলেও তাদের বিরুদ্ধে আইনের মাধ্যমে শাস্তি গ্রহনের জন্য প্রশাসনকে অনুরোধ করছি। আমি আইন শৃঙ্খলা মিটিং এ মাটির কাটার বিষয়ে উত্থাপন করলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে তার কোন ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়নি।

লতিফপুর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের মেম্বার সবুজ হোসেন রবিন জানান, নদী থেকে ভেকু দিয়ে মাটি কেটে ১০ চাকার ড্রাম ট্রাক দিয়ে বহন করায় চানপুর ব্রিজ ফাটল ধরেছে। এই ড্রাম-ট্রাক বন্ধ না করলে যেকোন মুহূর্তে সেতুটি ভেঙ্গে পড়তে পারে। এছাড়া অত্র এলাকার গ্রামীণ রাস্তা-ঘাটের অবকাঠামো ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। মাটি লুটের সঙ্গে জড়িতরা প্রভাবশালী হওয়ায় সাধারণ মানুষ এদের বিরুদ্ধে কথা বলার সাহস পায় না।

মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ ব্যাপারে মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. হাফিজুর রহমান বলেন, রাতে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা সমস্যা। মাটি ব্যবসায়ীরা রাতের আধারে মাটি কাটে। এখন থেকে রাতের আধারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে মাটি ব্যবসায়ী ও তাদের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840