সাগরদিঘী ইউপি চেয়ারম্যান হেকমত শিকদারের বিরুদ্ধে এবার গ্রাম পুলিশের অভিযোগ

সাগরদিঘী ইউপি চেয়ারম্যান হেকমত শিকদারের বিরুদ্ধে এবার গ্রাম পুলিশের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিবেদক: টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার সাগরদিঘী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হেকমত শিকদারের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতা, দূর্নীতি, সন্ত্রাসী কার্যক্রম ও চাঁদাবাজির অভিযোগ এনেছেন লাল মিয়া নামের এক গ্রাম পুলিশের সদস্য। ঘাটাইল থানার ওসি, পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক বরাবর একটি লিখিত অভিযোগপত্রও দিয়েছে লাল মিয়া।

অভিযোগপত্র থেকে জানা যায়, সাগরদিঘী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং আওয়ামী লীগ নেতা হেকমত শিকদার দূর্নীতির মাধ্যমে সরকারি অর্থ জনগণের কল্যাণে ব্যয় না করে আত্মসাৎ করছেন। অর্থ বছরের ৪০ দিনের বরাদ্দকৃত অর্থ আত্মসাতের উদ্দেশ্যে শ্রমিকের সিম নিয়ে ইউপি সচিবের সহযোগিতায় চেয়ারম্যান অর্থ উত্তোলন করছেন। এছাড়া দরিদ্র অসহায়দের জন্য যত গৃহ বরাদ্দ করা হয়েছে প্রতিটির জন্য চেয়ারম্যান হেকমত শিকদার ও বন অফিসার মলে ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকার বিনিময় ছাড়া সুপারিশ করেন না। অভিযোগে আরও বলা হয় চেয়ারম্যান হয়ে অঘাত সম্পত্তির মালিক হয়েছেন হেকমত শিকদার। টাঙ্গাইল এবং ঢাকা উত্তরাতে করেছেন বিশাল অট্টালিকা, সাগরদিঘীতে দু’তালা বাড়ী নির্মাণ ও কামালপুর, মালির চালাসহ বিভিন্ন স্থানে জমি ক্রয় করেছেন।

এছাড়া অভিযোগকারী মো. লাল মিয়া একজন ছোট কর্মচারি হয়ে মৃদু প্রতিবাদ করলে নানা রকম ভয়-ভীতি প্রদর্শন পূর্বক মৃত্যুর হুমকি দিয়ে সকল প্রকার ডিউটি থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন বলেও অভিযোগ পত্রে উল্লেখ রয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে সাগরদিঘী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হেকমত সিকদার বলেন, লাল মিয়া একটা নেশাখোর, মাদক খায় ও মাদক বিক্রি করে। তার বিরুদ্ধে সকল মেম্বাররা, চৌকিদাররা অভিযোগ দিয়েছে। শুধু তাই নয়, এলাকার জনগনও অভিযোগ দিয়েছে। পরে তাকে শাসন করা হয়। শাসন করায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের নিকট অভিযোগ করেছে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840