সংবাদ শিরোনাম:
বঙ্গবন্ধু সেতুর রক্ষণাবেক্ষণে আবারও চীনা সংস্থা

বঙ্গবন্ধু সেতুর রক্ষণাবেক্ষণে আবারও চীনা সংস্থা

প্রতিদিন প্রতিবেদক : বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের আওতাধীন বঙ্গবন্ধু সেতুর পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ কাজের অপারেটর হিসেবে আবারও নিয়োগ পেয়েছে চায়না কমিউনিকেশনস কন্সট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসিএল)।

পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য এ নিয়োগ পেয়েছে সংস্থাটি। এজন্য সংস্থাটিকে দিতে হবে ১৭২ কোটি ৬১ লাখ টাকা। বর্তমানে এই সংস্থাটিই সেতুর রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে রয়েছে।

সেতু কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, বঙ্গবন্ধু সেতু নির্মাণের পর থেকে এর পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রতি পাঁচ বছর মেয়াদে অপারেটর নিয়োগ দেওয়া হয়। নিয়োজিত অপারেটর যেসব কাজ করে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- মূল সেতু ও সেতু সংযোগ সড়ক রক্ষণাবেক্ষণ, নদীশাসন কাজের মনিটরিং ও জরুরি রক্ষণাবেক্ষণ, সেতু এলাকার ট্রাফিক ও নিরাপত্তা ব্যাবস্থাপনা।

বর্তমান অপারেটর চায়না কমিউনিকেশনস কন্সট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসিএল) এর মেয়াদ চলতি বছর ৩০ সেপ্টেম্বর তারিখে শেষ হবে। পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য পিপিআর ২০০৮ অনুসারে অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স অপারেটর নিয়োগের লক্ষ্যে ২০২০ সালের ১৬ নভেম্বর তারিখে ‘এনগেজিং অপারেটর ফর অপারেশন অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স অব বঙ্গবন্ধু ব্রিজ অ্যান্ড অ্যাসোসিয়েটেড ওয়ার্কস ফর ফাইভ ইয়ার্স’ শিরোনামে ‘সিঙ্গেল স্টেজ টু এনভেলপ’ পদ্ধতিতে আন্তর্জাতিক দরপত্র আহ্বান করা হয়।

দরপত্র নোটিশ বহুল প্রচারিত কয়েকটি বাংলা ও ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা ও ওয়েব সাইটে প্রকাশিত হয়। দরপত্র দাখিলের শেষদিন চলতি বছর ৩ ফেব্রুয়ারি তারিখে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পাঁচটি প্রতিষ্ঠান দরপত্র দাখিল করে। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো—স্পেক্ট্রা ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড, সিএনএস-মীর আকতার জয়েন্ট ভেঞ্চার, চায়না কমিউনিকেশনস কন্সট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড, এমবিইসি-টিসিস জেভি এবং ডিসিএল-এমএসসিডি-ডব্লিউসিটিসিএল-জেভি।

দাখিলকৃত টেকনিক‌্যাল প্রপোজালগুলো দরপত্র দলিলে উল্লিখিত নির্ণায়কের ভিত্তিতে মূল্যায়ন ও যাচাই করে দরপত্র মূল্যায়ন কমিটি মূল্যায়ন প্রতিবেদন দাখিল করে। কমিটির প্রতিবেদনে দুটি প্রতিষ্ঠান চায়না কমিউনিকেশনস কন্সট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসিএল) এবং এমবিইসি-টিসিসিএল জেভি-এর টেকনিক‌্যাল প্রপোজাল কারিগরি বিবেচনায় যোগ্য হিসেবে বিবেচনা করে প্রতিষ্ঠান দুটির আর্থিক প্রস্তাব খোলার সুপারিশ করে।

সূত্র জানায়, কমিটির সুপারিশ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কর্তৃক অনুমোদনের পর কারিগরি মূল্যায়নে রেসপনসিভ দুটি প্রতিষ্ঠানের আর্থিক প্রস্তাব তাদের প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে গত ২৫মে তারিখে খোলা হয়।

কাজটির দাপ্তরিক প্রাক্কলিত মূল্য ১৮৭ কোটি ৬৫ লাখ ১৯ হাজার ৩৪৯ টাকা। দাখিলকৃত আর্থিক প্রস্তাবগুলো প্রয়োজনীয় পরীক্ষা শেষে দেখা যায় চায়না কমিউনিকেশনস কন্সট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসিএল) ১৭২ কোটি ৬১ লাখ ১৪ হাজার ৮০৯ টাকা উল্লেখ করেছে। যা প্রাক্কলিত দরের চেয়ে ৮.০১ শতাংশ কম এবং এমবিইসি-টিসিসিএল জেভি-১৮০ কোটি ৮৭ লাখ ৮৪ হাজার ২৭১ টাকা। যা প্রাক্কলিত দরের চেয়ে ৩.৬০ শতাংশ কম।

মূল্যায়ন কমিটি সার্বিক পর্যালোচনা শেষে দরপত্রে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো মধ্যে রেসপন্সিভ সর্বনিম্ন দরদাতা চায়না কমিউনিকেশনস কন্সট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসিএল) এর মূল্যায়িত দর ১৭২ কোটি ৬১ লাখ ১৪ হাজার ৮০৮ টাকা গ্রহণ করে প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে চুক্তি করেছে ।

উল্লেখ্য যে, বর্তমানের চলমান ঠিকাদারের সঙ্গে পাঁচ বছরের জন্য সম্পাদিত চুক্তিমূল্য ছিল ১৪২ কোটি ৩ লাখ ৩৭ হাজার টাকা।

সূত্র জানায়, দরপত্রে সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে চলমান ঠিকাদার সংস্থা চায়না কমিউনিকেশনস কন্সট্রাকশন কোম্পানি লিমিটেড (সিসিসিসিএল) পরবর্তী পাঁচ বছরের জন্য বঙ্গবন্ধু সেতুর পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণের কাজ করবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840