সংবাদ শিরোনাম:
জমে উঠেছে টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের নির্বাচন ১৫ পদে ২৭টি মনোনয়নপত্র বিক্রি আগাম টক বরইয়ে লাভবান সখীপুরের সিদ্দিক সখীপুরে নারীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা, ইউপি সচিবকে কারাদন্ড মাভাবিপ্রবিতে ১৩তম ব্যাচের শিক্ষার্থীদের তিন দিনব্যাপী‘শিক্ষা সমাপনী উৎসব’ শুরু সখীপুর পোস্ট মাস্টারের বিরুদ্ধে গ্রাহক ভোগান্তি ও অসৌজন্যমূলক আচরণের অভিযোগ টাঙ্গাইলে ছাত্রলীগ ছাড়তে চান ত্যাগী নেতাকর্মীরা আগামী ১৭ ডিসেম্বর টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের নির্বাচন গোপালপুরে গাঁজা গাছসহ এক মাদকসবেী আটক ঘাটাইলে স্ত্রী হত্যার পর বোরকা পরে পালাচ্ছিলেন স্বামী ভূঞাপুরে উত্তরপত্র পাওয়ার পরই শিক্ষার্থীরা জান‌লো পরীক্ষা হবেনা
ঘাটাইলে গণধর্ষণ মামলার দুই আসামী গ্রেফতার

ঘাটাইলে গণধর্ষণ মামলার দুই আসামী গ্রেফতার

প্রতিদিন প্রতিবেদক : মোবাইল ফোনে পরিচয়। মাঝে মধ্যে চলতো খুনসুটি। এভাবেই একে অন্যের সাথে তৈরি হয় প্রেমের সম্পর্ক। তরুণীর বয়স কেবল ১৫ হলেও প্রেমিকের আছে বউ বাচ্চা। সব জেনেও চলছিল অদম্য প্রেমালাপন। প্রথম সাক্ষাতেই প্রেমিকের বাহুডোরে ধর্ষিতা হয় এই তরুণী। শুধু প্রেমিকনয় প্রেমিকের মামাও অংশগ্রহণ করেন এই ধর্ষণযজ্ঞে । পরে আরো একজন অংশ নিতে চাইলে ধর্ষিতার কান্না আর ক্ষমা প্রার্থনায় প্রাণে রক্ষা পায় ওই তরুণী।

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার লক্ষিন্দর ইউনিয়নের দোলালিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গত বৃহস্পতিবার (০৭ অক্টোবর) রাতে এ ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। এ মামলায় লক্ষিন্দর ইউনিয়নের মুরাইদ গ্রামের আয়নাল হকের ছেলে মোস্তফা(২৫) এবং একই এলাকার মফেজ উদ্দিনের ছেলে মোফাজ্জল (৩৫) কে আটক করেন পুলিশ।

সাগরদিঘি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মনিরুজ্জামান (ইন্সপেক্টর) এবং ধর্ষিতার সাথে কথা বলে জানা যায়, ওই তরুণীর সাথে মোবাইল ফোনে পরিচয় হয় মোস্তফার। মাঝে মাঝে কথা হতো তার সাথে। গত দুই দিন আগে ওই তরুনী পরিবারের সাথে রাগ করে চাকরির খোঁজে চলে যায় গাজীপুর। কোথাও চাকরি না পেয়ে হতাশ হয়ে পরে ওই মেয়ে। পরে মোস্তফাকে বিষয়টি জানালে সে ওই তরুনীকে চাকরির আশ্বাস দিয়ে তার কাছে ডেকে নেন। মোস্তফা ওই মেয়েকে পরের দিন একটা চাকরির ব্যাবস্থা করে দিবে বলে এক রাত অপেক্ষা করতে বলেন।

পরে মোস্তফা তার প্রতিবেশি এক মামা মোফাজ্জল হোসেনের ফাঁকা বাড়িতে নিয়ে যায় ওই মেয়েকে। পরে মামা ভাগিনা দুইজনে মিলে পালাক্রমে চালায় অত্যাচার। এসময় ধর্ষিতা চিৎকার করলে মোস্তফা তার মামাকে টেলিভিশনের ভলিয়ম বাড়িয়ে দিতে বলে। ধর্ষিতাকে নানা ভয় দেখিয়ে চলতে থাকে পাশবিকতা। এসময় আরো একজন উপস্থিত হয় এতে অংশগ্রহন করতে। কিন্তু মেয়েটি কান্না করে ক্ষমা চাওয়ায় বেচে যায় তার হাত থেকে। পরে স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে সাগরদিঘি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে জানালে স্থানীয় লোকজনসহ পুলিশ তাদের আটক করেন।

ঘাটাইল থানার ওসি আজহারুল ইসলাম সরকার পিপিএম বলেন, এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলে পাঠানো হয়েছে এবং ওই নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840