সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের পাঠাগারে বেলা’র বই প্রদান টাঙ্গাইলে সাংবাদিকদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার বিতরণ ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে সকালে যানজট বিকেলে স্বাভাবিক ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের এলেঙ্গা থেকে সেতু পূর্ব পাড় পর্যন্ত বেড়েছে যানবাহনের চাপ, চলছে ধীর গতিতে সখীপুরে জেলা প্রশাসকের অর্থায়নে আশ্রয়ণ প্রকল্পে বৈদ্যতিক পাখা বিতরণ মধুপুরে মাদক দ্রব্যের অপব্যবহার রোধে কর্মশালা মেয়াদোত্তীর্ণ ভ্যাকসিনে ১৪০০ হাঁসের মৃত্যু, অভিযোগ খামারীর ইয়াবাসহ মাদক কারবারিকে আটক করেছে র‌্যাব প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে আনন্দ শোভাযাত্রা গোপালপুরে বিদ্যুৎপৃষ্টে যুবক নিহত
কালিহাতীতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই বন্ধুর মৃত্যু

কালিহাতীতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই বন্ধুর মৃত্যু

প্রতিদিন প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে মাছ ধরতে গিয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে দুই বন্ধুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। বুধবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে উপজেলার ভাবলা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এসময় আরেক বন্ধু আহত হয়। তারা বিলে মাছ ধরার উদ্দেশ্যে টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলা থেকে কালিহাতীতে আসেন বলে জানা যায়।

নিহতরা হলেন, মধুপুরের মহিষমারা ইউনিয়নের মহিষমারা গ্রামের কুদরত আলীর ছেলে বাদল (২৬)। তিনি ভ্যানচালক ছিলেন। একই গ্রামের আশ্রয়ণ কেন্দ্রের বাসিন্দা সুরুজ আলী ছেলে মানিক (২৫)। তিনি পেশায় শ্রমিক। মহিষমারা ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মোতালেব হোসেন সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

সাথে থাকা মৎস্য শিকারী চানু মিয়া জানান, রাত সাড়ে ১১ টার দিকে বাদল ও মানিকসহ চারজন বিলের পাশের রেললাইনে হাঁটতে ছিলেন। এ সময় পিছন থেকে ট্রেন এসে বাদলকে আর মানিককে ধাক্কা দেয়। ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। সবাই খুবই ভয় পায়।

টাঙ্গাইল রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই আব্দুস সবুর বলেন, রাত ১ টায় খবর শোনার পর আমরা ঘটনাস্থলে যাই। পৌঁছানোর আগেই অন্যরা লাশ দুটি নিয়ে চলে যায়।

মধুপুরের মহিষমারা ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মোতালেব হোসেন বলেন, বুধবার রাতেই দুইজনের মরদেহ নিয়ে বাড়ি নিয়ে আসেন সাথে থাকা অন্যরা। পুরো গ্রাম জুড়ে চলছে মোকের মাতম। মানিকের ৮ দিনের সন্তানসহ স্ত্রী ও মা বাবা রয়েছেন। বৃহস্পতিবার নামাজে জানাযা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তাদের দাফন করা হয়েছে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840