সংবাদ শিরোনাম:
টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রেসব্রিফিং

টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রেসব্রিফিং

প্রতিদিন প্রতিবেদক : টাঙ্গাইল জেলার বিভিন্ন স্থানে পাঁচ হাজার দুই শত ষাটজন লোক বিদেশ থেকে এসেছে। এর মধ্যে পাঁচশত জনকে নিজ বাড়ীতে কোয়ারেন্টাইনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

কোয়ারেন্টাইনে তাদের চৌদ্দ দিন থাকতে হবে। বাকীদের চৌদ্দ দিন বা তারও বেশী দিন ওভার হয়েছে। যে কারণে তাদের কোন প্রকার ঝুঁকি নেই। তবে যারা কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে তাদের জন্য আতংকিত হওয়ার কিছু নেই। এখন পর্যন্ত টাঙ্গাইলে করোনাভাইরাসে কেউ আক্রান্ত হয়নি।

টাঙ্গাইলে লকডাউনের মতো কোন অবস্থা হয়নি। হলে তখন সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। সারা বিশ্বে করোনাভাইরাস ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। সে বিদেশ থেকে আসা ব্যাক্তির ও তার পরিবারের সুরক্ষার জন্য কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা।

কোয়ারেন্টাইনে থাকা মানেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত এমন ধারনা করাও সম্পূর্ণ ভূল হবে। চৌদ্দ দিন পর তারা স্বাভাবিক ভাবে জীবন যাপন করতে পারবেন। রোববার (২২ মার্চ) দুপুরে জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে “করোনাভাইরাস প্রতিরোধে আমাদের করণীয় ও বর্তমান অবস্থা” শীর্ষক প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠানে বক্তারা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ বিষয়ে ও জেলায় করোনাভাইরাসের সার্বিক চিত্র গণমাধ্যম কর্মীদের সামনে তুলে ধরেন।

টাঙ্গাইলে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে বক্তারা আরো বলেন, দেশের এমন পরিস্থিতে যাতে কেউ কোন প্রকার অপ-প্রচার বা গুজব ছড়াতে না পারে সে ব্যপারে গণমাধ্যম কর্মীদের সজাগ থেকে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এ জাতীয় দূর্যোগ মোকাবেলায় কাজ করার আহবান জানান তারা।

জেলা প্রশাসক মো.শহিদুল ইসলাম-এর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায়, জেলা সিভিল সার্জন ডাক্তার মোহাম্মদ ওয়াহীদুজ্জামান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোহাম্মদ মোশারফ হোসেন খান,

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ বজলুর রশীদ, জেলা তথ্য কর্মকর্তা কাজী গোলাম আহাদ, টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সভাপতি এ্যাডভোকেট জাফর আহমেদ। এসময় জেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তা ও জেলা কর্মরত সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840