সংবাদ শিরোনাম:
সখীপুরে রাস্তা পাকাকরণের ১০ দিনের মাথায় ওঠে যাচ্ছে কার্পেটিং

সখীপুরে রাস্তা পাকাকরণের ১০ দিনের মাথায় ওঠে যাচ্ছে কার্পেটিং

প্রতিদিন প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলের সখীপুরে বানিয়ারসিট বাজার হতে দেবরাজ পর্যন্ত সড়ক পাকাকরণের ১০ দিনের মাথায় হাতের টানেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং। উপজেলার কালিয়া ইউনিয়নের বানিয়ারসিট বাজার থেকে দেবরাজ পর্যন্ত ওই এক কিলোমিটার রাস্তার পাকাকরণে প্রাইম ডিজাইন এন্ড ডেভোলপমেন্ট নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ উঠেছে। আর তাদের এ দায়সারা কাজের জন্য এলাকাবাসীর মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে আইআরআইডিপি প্রকল্পে প্রায় ৫৫ লাখ টাকা ব্যয়ে উপজেলার বানিয়ারসিট বাজার থেকে দেবরাজ রাস্তার এক কিলোমিটার কাঁচা রাস্তা পাকাকরণের কাজ পায় প্রাইম ডিজাইন এন্ড ডেভোলপমেন্ট নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। গত ১০দিন আগে ওই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজটি শেষ করে। নিন্মমাণের সামগ্রী দিয়ে পাকাকরণের সময় ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে স্থানীয়রা বারবার নিষেধ করলেও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লোকজন তাদেরকে বিভিন্নভাবে হুমকি-ধামকি দিয়ে কাজ চালিয়ে যান। মঙ্গলবার স্থানীয়দের কার্পেটিং ওঠানোর ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মহলে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

কালিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মন্ডল বলেন, ‘গত ১০দিন আগে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজটি সমাপ্তি করে। পাকাকরণের কাজটি অত্যান্ত নিম্মমাণের হওয়ায় হাত দিয়েই কার্পেটিং ওঠানো যাচ্ছে। এরকম প্রতারক ঠিকাদারের মাধ্যমে আর কোথাও যেন কাজ দেওয়া না হয় সে দিকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজর দেওয়ার দাবি জানান।

ওই সড়কে চলাচলকারী আবু হানিফ মিয়া বলেন, ‘এক কিলোমিটার রাস্তার ৫০ মিটার রেখেই কাজটি শেষ করা হয়েছে। সংস্কারের ১০ দিন যেতে না যেতেই কার্পেটিং ওঠে যাচ্ছে। কাজের সময় বাধা দিলেও ঠিকাদার কোন কর্ণপাত করেননি। তিনি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানে শাস্তি ও রাস্তাটি পুনরায় সংস্কারের দাবি জানান।

প্রাইম ডিজাইন এন্ড ডেভোলপমেন্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কর্ণধার মিজানুর রহমান বলেন, ‘ রাস্তাটিতে নিন্ম মানের কোন সামগ্রী দিয়ে কাজ করা হয়নি। কার্পেটিং-এর কাজ করার পর সেটা শক্ত হতে কিছুটা সময় লাগে। কিন্তু কার্পেটিং শক্ত হওয়ার আগেই স্থানীয় লোকজন রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় কার্পেটিং ওঠিয়েছেন। যেসব জায়গায় সমস্যা হয়েছে, সেসব জায়গায় ঠিক করে দেওয়া হবে বলে তিনি জানান।

উপজেলা এলজিইডি কার্যালয়ের প্রকৌশলী এসএম হাসান ইবনে মিজান বলেন, ‘নিম্মমাণের কাজের বিষয়টি স্থানীয়রা আমাদের জানাতে পারতেন। কিন্তু তাদের কার্পেটিং ওঠানো ঠিক হয়নি। রাস্তায় নিন্মমানের কাজ করা হলে ওই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840