সংবাদ শিরোনাম:
চিকিৎসার অভাবে এক পা হারিয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছে মিলন

চিকিৎসার অভাবে এক পা হারিয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছে মিলন

প্রতিদিন প্রতিবেদক : টাঙ্গাইল পৌর এলাকার ২নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা মিলন (২৩)। অসচ্ছল পরিবারের সন্তান সে। মাইক্রোবাস চালিয়ে পরিবারের হাল ধরতে চেয়েছিলো। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস, একটি দুর্ঘটনায় মিলন ও তার পরিবারের স্বপ্ন পূরণ হলো না। উল্টো সেই পরিবারে আজ অন্ধকার নেমে এসেছে। টাকার অভাবে চিকিৎসা না করাতে পেরে আজ পঙ্গুত্ব বরণ করতে হয়েছে মিলনকে। সড়ক দুর্ঘটনায় পা হারিয়ে চিকিৎসার টাকার অভাবে মৃত্যুর প্রহর গুনতে হচ্ছে তাকে। চিকিৎসার টাকা জোগাড় করতে শেষ সম্বলটুকু বসবাসের ঘরটিও বিক্রি করে দিতে হয়েছে। মিলনের পরিবার তাদের আত্মীয়-স্বজন, পাড়া-প্রতিবেশি ও বিভিন্ন জায়গা থেকে ধার করে আনা প্রায় সাড়ে ৫ লক্ষ টাকা খরচ করেছে। কিন্তু তাতেও কোন লাভ হচ্ছে না।
মর্মান্তিক দুর্ঘটনার কারণে মিলনের বাম পা কেটে ফেলা হয়েছে, ডান পায়েও পচন ধরেছে। মিলনের চিকিৎসার জন্য আরো প্রায় ৩ থেকে ৪ লক্ষ টাকার প্রয়োজন।

জানা যায়, টাঙ্গাইল পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড এনায়েতপুর এলাকার বাসিন্দা মোঃ মিজানের ছেলে মাইক্রোবাস চালক মিলন (২৩)। পেশাগত কারণে গত১৭ জুলাই সকালে ঢাকা থেকে মাইক্রোবাস চালিয়ে টাঙ্গাইল যাচ্ছিল। যাওয়ার পথে ঢাকা জেলার আশুলিয়া থানার ১নং শিমুলিয়া ইউনিয়নের কবিরপুর ইউরো আর্ট এ্যাপরোলস লিমিটেড (কোরিয়ান গার্মেন্টস) এর সামনে টাঙ্গাইলগামী লেনে তার চালিত গাড়িটি হঠাৎ রাস্তায় নষ্ট হয়ে যায়। চালক মিলন রাস্তা হতে গাড়িটি সরানোর জন্য লোকজন ডাকতে রাস্তা পারাপার হওয়ার সময় একইদিকগামী প্রিমিয়ার সিমেন্ট কোম্পানির একটি কাভার্ড ভ্যান (ঢাকা মেট্রো উ ১১-২৭১৮) মিলনকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে মিলনের বাম পায়ে গুরুতর জখম হয়। পরে মিলনকে মুমূর্ষ অবস্থায় চিকিৎসার জন্য স্থানীয় লোকজন ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কেপিজি হাসপাতালে নিয়ে যায়।

অপরদিকে হাইওয়ে থানার এসআই মোঃ আবু তালেব ভূঁইয়া ঘটনাস্থল থৈকে মাইক্রোবাস ও প্রিমিয়ার সিমেন্ট কোম্পানির কাভার্ড ভ্যানটি জব্দ করে থানা হেফাজতে নেয়। এ ব্যাপারে মিলনের চাচা মোঃ আমিনুল ইসলাম ঢাকা আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

মিলনের পিতা মিজান ও দাদা মোঃ আব্দুল আজিজ এর অভিযোগ, সড়ক দুর্ঘটনার জন্য দায়ী প্রিমিয়ার সিমেন্ট কোম্পানির কভার্ডভ্যান চালক সুমন ও কোম্পানীর কর্তৃপক্ষ চিকিৎসার বাবদ সহযোগিতা তো দূরের কথা, কোন খোঁজখবর পর্যন্ত নেয়নি। মিলনের পরিবার এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষসহ সকলের সহযোগীতা কামনা করছে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840