সংবাদ শিরোনাম:
বিন্দুবাসিনী স্কুলের সীমানা প্রাচীর অপসারণ বন্ধের দাবিতে মানববন্ধ ধনবাড়ীতে প্রাইভেটকার চাপায় নিহত ১ আহত ৪ ভূঞাপুরে ৩৭টি পূজা মন্ডপে পৌর মেয়রের আর্থিক অনুদান টাঙ্গাইল শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলমগীর সম্পাদক রৌফ সাফ জয়ী কৃষ্ণা রানী সরকার ও কোচ গোলাম রাব্বানী ছোটনকে সংবর্ধনা দিয়েছে টাঙ্গাইল জেলা ক্রীড়া সংস্থা ভাসানীর মাজারে ন্যাপ ভাসানীর পুষ্পস্তবক অর্পণ গোপালপুরে কৃষ্ণাকে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সংবর্ধনা নাগরপুরে এবারের দুর্গোৎসব হবে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় বজ্রপাত প্রতিরোধে বাতিঘর আদর্শ পাঠাগারের উদ্যোগে তালবীজ বপন বিএনপির মিথ্যাচার করে দেশে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করছে -কৃষিমন্ত্রী
দেড় মাসেও উদ্ধার হয়নি নিখোঁজ হওয়া স্কুলছাত্রী

দেড় মাসেও উদ্ধার হয়নি নিখোঁজ হওয়া স্কুলছাত্রী

প্রতিদিন প্রতিবেদক : টাঙ্গাইলের মধুপুরে স্কুলছাত্রী নিখোঁজ হওয়ার দেড় মাসেও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ। এতে করে ওই স্কুলছাত্রীর পরিবার চরম হতাশায় ভুগছেন। নিখোঁজ হওয়া স্কুলছাত্রীর জন্য আহাজারি করছেন তার আত্মীয়-স্বজনরা। পুলিশ বলছে উদ্ধারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মধুপুর পৌরসভার মাষ্টারপাড়া এলাকার মীর আব্দুল হালিমের মেয়ে তানহানুন মীম (১৪)। সে এবার মধুপুর রানীভবানী মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী।

এ ঘটনায় ওই স্কুলছাত্রীর মা মনিরা বেগম মধুপুর থানায় বাদী হয়ে ৩ জনকে আসামী করে গত ২৭ ডিসেম্বর মামলা দায়ের করেন। মামলা নং- ১৩। আসামীরা হলো, মধুপুরের বৃত্তিবাড়ী গ্রামের জলিলের ছেলে নজরুল ইসলাম (৩২), নাহিদুল ইসলাম (২১) ও শালিকা গ্রামের আ. করিমের ছেলে শাহীন (৩০)।

ওই স্কুলছাত্রীর মা মনিরা বেগম জানান, তার মেয়ে তানহানুন মীম মধুপুর রানী ভাবনী মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণির ছাত্রী। দীর্ঘদিন ধরে পাশের বৃত্তিবাড়ী এলাকার আ. জলিলের ছেলে নজরুল ইসলাম মীমকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো। তার প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় রাস্তায় আসা-যাওয়ার পথে মীমকে নানাভাবে উত্ত্যক্ত করতো এবং উঠিয়ে নিয়ে বিয়ে করার হুমকী প্রদান করতো।

গত বছর ১৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় মীম তার নানার বাড়ী মির্জাবাড়ী ইউনিয়নের ব্রাক্ষণবাড়ী থেকে বাড়ী ফেরার পথে ব্রাক্ষণবাড়ী মজিদচালা গ্রামের রাস্তায় আল-আমিনের মনোহারী দোকানের সামনে পৌঁছালে নজরুলসহ তার ৩/৪ জন সহযোগি মিলে পূর্ব পরিকল্পিতভাবে মীমকে গতিরোধ করে অপহরণ করে সিএনজি যোগে তুলে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে বাবা-মা ও আত্মীয়-স্বজনসহ অনেকে খোঁজাখুঁজি করে মীমকে। কোথাও না পেয়ে পরদিন ১৫ ডিসেম্বর মধুপুর থানায় মীমের দাদা খোরশেদ আলী সাধারণ ডায়রী করেন।

এ ব্যাপারে ওই স্কুলছাত্রীর মা-বা কান্নাজড়িত কন্ঠে এই প্রতিবেদককে জানান, অপহরণের দেড় মাস পার হয়ে গেলেও পুলিশ আমাদের মেয়েকে উদ্ধার করতে পারেনি এবং কী একজন আসামীকেও এখন পর্যন্ত মধুপুর থানা পুলিশ গ্রেপ্তার করেনি। মামলা করার কারণে আমরা চমর নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছি। নজরুলের পরিবার আমাদেরকে প্রাণ নাশের হুমকি দিচ্ছে। আমাদের মেয়েকে আমরা ফিরিয়ে চাই। এজন্য প্রশাসনসহ উর্ধ্বতন কর্মতকর্তাদের সহযোগিতা কামনা করি।

এ ব্যাপারে মধুপুর থানার ওসি তারিক কামাল ঘটনার সত্যত্যা স্বীকার করে বৃহস্পতিবার জানান, এ মামলার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এসআই সু-শান্তকে। আসামীদেরকে গ্রেপ্তারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। দ্রুত সবাইকে গ্রেপ্তার করতে পারবো।

খবরটি শেয়ার করুন..

Comments are closed.




© সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি ।
নির্মান ও ডিজাইন: সুশান্ত কুমার মোবাইল: 01748962840